সরকারের উদাসীনতায় সীমান্তে বন্য হাতির আক্রমণে দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল- প্রিন্স

47

ফারুক আহমেদ, ময়মনসিংহ :
বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটিতে সদ্য পদোন্নতি প্রাপ্ত যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেছেন, বার বার ভারতীয় বন্য হাতির পাল বাংলাদেশে প্রবেশ করে মানুষ হত্যা করলেও সরকার এ বিষয়ে সম্পূর্ণ উদাসীন। শনিবার বিকেলে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার সীমান্তবর্তী ভূবনকূড়া ইউনিয়নের কড়ইতলী গ্রামে সম্প্রতি ভারত থেকে অনুপ্রবেশকারী বন্য হাতির আক্রমনে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন শেষে এ মন্তব্য করেন তিনি। এসময় তিনি বন্য হাতির আক্রমনে মৃত্যুবরণকারী গোলাপ হোসেন ও কোরবান আলীর পরিবারের সাথে সাক্ষাত করে সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।এসময় তিনি গোলাপ হোসেনের কবরও জিয়ারত করেন।পরে আব্দুল মালেক মন্ডলের বসত বাড়িসহ ক্ষতিগ্রস্ত অন্যান্য বাড়ি ও ফসলের ক্ষেত ঘুরে দেখেন এবং ক্ষতিগ্রস্তদের সহযোগিতা প্রদান করেন । এরপর তিনি কড়ইতলী শহীদ জিয়া বাজারে গণ সংযোগ এবং জনসাধারণের সাথে মতবিনিময় করেন। এসময় গ্রামবাসীদের উদ্যেশ্যে বক্তব্য প্রদানকালে তিনি বন্য হাতির আক্রমনে মৃত্যু বরণকারীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে সমবেদনা জানিয়ে বলেন, ভারত থেকে অনুপ্রবেশকারী বন্য হাতি সীমান্তবর্তী এলাকার নিরীহ গরীব দুখী মানুষের সুখ, শান্তি কেড়ে নিয়েছে। বন্য হাতির আতঙ্কে মানুষের চোখে ঘুম নাই। প্রায় প্রতিদিন ভারতীয় বন্য হাতির আক্রমনে মানুষ জীবন দিচ্ছে।সরকারের অবহেলার কারণে এবং উদ্যোগ ও আন্তরিকতার অভাবে, প্রতিদিন লাশের মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে।অথচ এ ব্যপারে সরকার এখনও নির্বিকার। তিনি বলেন, বন্য হাতির অনুপ্রবেশ বন্ধ করতে, আমরা মানববন্ধন করে, সমাবেশ করে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করেছি। সরকার এ বিষয়ে উদাসীন। তাই, এসব মৃত্যুর দায় সরকার এড়াতে পারে না। সীমান্ত আজ অরক্ষিত ও অনিরাপদ। একদিকে ভারতীয় সীমান্তরক্ষীদের গুলিতে এবং অন্যদিকে ভারতীয় বন্য হাতির আক্রমনে হরহামেশাই মরছে মানুষ। মাদক ছাড়াও বিভিন্ন ভোগ্যপন্যের চোরাচালান বাড়ছে ক্রমাগত। তিনি অবিলম্বে ভারতীয় বন্য হাতির অনুপ্রবেশ ও আক্রমণ বন্ধে কর্যকর পদক্ষেপ এবং ক্ষতিগ্রস্তদের পর্যাপ্ত সহযোগিতাসহ পূনর্বাসনের দাবী জানান। এসময় ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপির সদস্য আসলাম মিয়া বাবুল, হানিফ মোহাম্মদ শাকের উল্লাহ, বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক আমজাদ আলী,উপজেলা বিএনপি নেতা রমজান আলী,আল আমিন চমক, আলী আমজাদ খান দিপু, ইউনিয়ন বিএনপি নেতা নবী হোসেন, ময়মনসিংহ উত্তর জেলা যুবদলের সদস্য জাকির হোসেন, মোতালেব হোসেন,আবু নাসের, শ্রমিক দলের বিভাগীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা সভাপতি আবদুল গণি, সাধারণ সম্পাদক মশিউজ্জামান, স্বেচ্ছাসেবক দলের জেলা যুগ্ম আহ্বায়ক ও উপজেলা আহ্বায়ক রুহুল আমিন খান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব আলিমুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক এম আর আল আমিন, অন্তর আকন্দ,মির্জা তায়েব, পৌর ছাত্রদলের আহ্বায়ক নূরে আলম জনি, সদস্য সচিব তাজবীর হোসেন, যুগ্ম আফজাল হোসেন, প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। #

পূর্বের খবরমালিকের দাবি এবছরও দেশ সেরা কালো মানিক
পরবর্তি খবরজাতীয় ঈদগাহে ৫ স্তরের নিরাপত্তা : ডিএমপি কমিশনার