‘বিতর্কিত অভিনেত্রী’ সোফিয়া লিওনের রহস্যজনক মৃত্যু

121

অনলাইন ডেস্ক : পর্ন সিনেমার অভিনেত্রী সোফিয়া লিওনের মৃত্যুর খবর ৯ দিন পর প্রকাশ হয়েছে। ২৬ বছর বয়সী সোফিয়ার অচেতন দেহ তার নিজের অ্যাপার্টমেন্ট থেকে উদ্ধার করা হয়। এদিকে, সোফিয়া লিওনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন তার সৎ বাবা মাইক রোমেরো। তিনি বলেন, গত ১ মার্চ সোফিয়া লিওনকে তার অ্যাপার্টমেন্টে সম্পূর্ণ অচেতন ও নিস্তেজ অবস্থায় পাওয়া যায় এবং তার মৃত্যুর কারণ নিয়ে তদন্ত এখনো চলছে। খবর এনডিটিভি।
সামাজিকমাধ্যমে লিওনের মৃত্যুর খবর জানিয়ে মেয়ের ভক্তদের কাছে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন করার জন্য আর্থিক সাহায্যের আবেদন করেন মাইক রোমেরো।

তিনি লিখেছেন, ‘সোফিয়া ছিল (আমার) প্রিয় কন্যা, কারও বোন, নাতনি ও বন্ধু। নানান প্রাণীর প্রতিই তার গভীর ভালোবাসা ছিল, বিশেষ করে তার তিনটি পোষা প্রাণীর প্রতি। ভ্রমণ করতে ভালোবাসত এবং সব সময় ওর চারপাশের সবাইকে হাসিখুশি রাখার উপায় খুঁজে বের করত। সোফিয়াকে আমরা খুব মিস করব। কিন্তু যারা ওকে ভালোবাসে, তাদের হৃদয়ে ওর স্মৃতি বেঁচে থাকবে।’
সোফিয়ার আকস্মিক মৃত্যুতে পরিবার ও বন্ধুরা শোকাহত। হিন্দুস্তান টাইমস সূত্রে জানা গেছে, সোফিয়ার জন্য শোক প্রকাশ করার পাশাপাশি অনেকেই তার মৃত্যুর তদন্তের দাবি জানিয়েছেন।

একাধিক সূত্র দাবি করেছে, তাঁর মৃত্যু স্বাভাবিক নয়। পরিবারও এই মুহূর্তে এমন আর্থিক টানাটানির মুখোমুখি হওয়ার জন্য প্রস্তুত ছিল না। মাইক রোমেরো জানিয়েছেন, মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে স্থানীয় পুলিশের তদন্ত এখনো চলছে। তার মডেলিং এজেন্সি, হানড্রেড ওয়ান মডেলিংও খবরটি নিশ্চিত করেছে এবং বলেছে, ‘আমাদের প্রিয় সোফিয়া লিওনের অকাল এবং মর্মান্তিক মৃত্যুতে মন ভেঙে গেছে।’ প্রতিষ্ঠানটি এক্সে একটি পোস্টে লিখেছে, ‘একটি সুন্দর আত্মা, যে আমাদের অনেককে স্পর্শ করেছে। এই দেবদূতের আত্মার শান্তি কামনা করি। আমরা আপনাকে অনেক ভালোবাসতাম। পরিবারের জন্য একটি গোফান্ড মি শুরু করা হয়েছে।’

সেখানে আরও দাবি করা য়েছে, আত্মহত্যা করে মারা যাননি সোফিয়া লিওন। তাঁর মৃত্যুর বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। ১৯৯৭ সালের ১০ জুন যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামিতে জন্ম সোফিয়া লিওনের। মাত্র ১৮ বছর বয়সে পর্ন সিনেমার জগতে প্রবেশ করেন তিনি। তার অর্থের পরিমাণ ছিল কমপক্ষে ১০ লাখ ডলার। টিএমজেডের প্রতিবেদন অনুসারে, তিন মাসের মধ্যে পরপর চার পর্ন তারকার মৃত্যু হয়েছে।
চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে আত্মহত্যা করেন কাগনি লিন কার্টার। গত সপ্তাহে ওহাইওতে নিজ বাসভবনে মারা যান কাগনি। চলতি বছরের জানুয়ারিতে ওকলাহোমায় জেসি জেন ও তার প্রেমিক ব্রেট হাসেনমুলারের মৃতদেহ উদ্ধার হয়।

পূর্বের খবরস্মার্ট বাংলাদেশে শিক্ষকদেরও স্মার্ট হতে হবে : শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী
পরবর্তি খবরগর্ভাবস্থায় ত্বক সুন্দর রাখবেন যে ভাবে