কাদের চেয়ারম্যান রওশন বিরোধীদলীয় নেতা, রংপুর-৩ সাদ এরশাদের

জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা নির্বাচন নিয়ে ঐক্যমতে পৌঁছেছে বিরোধী দুই গ্রুপই। এতে জিএম কাদের চেয়ারম্যান, রওশন বিরোধী দলীয় নেতা আর সাদ এরশাদকে রংপুর-৩ আসনে প্রার্থী করার মধ্য দিয়ে সমঝোতা হয়েছে।রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) রাত ১২ টার দিকে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এ এসএম ফয়সল চিশতী এই তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাত নয়টার দিকে বারিধারা ক্লাবে বিবাদমান দুই গ্রুপের মধ্যে এই বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকের মধ্যস্থতা করছেন পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা। প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত এই বৈঠক চলছে বলে জানিয়েছে দলটির একটি সূত্র।

বৈঠকে জিএম কাদেরপন্থীদের মধ্যে উপস্থিত রয়েছেন প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবুল হোসেন বাবলা, মাসুদ উদ্দীন। আর রওশনপন্থীদের মধ্যে উপস্থিত রয়েছেন প্রেসিডিয়াম সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, ফখরুল ইমাম, মজিবুল হক চুন্নু ও এসএম ফয়সল চিশতী।

উল্লেখ্য, গত একসপ্তাহ ধরে জাপার চেয়ারম্যান ও সংদের বিরোধীদলীয় নেতা হওয়া নিয়ে দ্বন্দ্ব শুরু হয় জিএম কাদের ও রওশন এরশাদের মধ্যে। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) এক সংবাদ সম্মেলনে জাপার একাংশ রওশন এরশাদকে দলের চেয়ারম্যান ঘোষণা করে। পরবর্তী সময়ে ওইদিনই সংবাদ সম্মেলন ডেকে জিএম কাদের বলেন, ‘রওশন এরশাদকে সম্মান করি, যতটুকু শুনেছি, তিনি নিজে থেকে নিজের কথা বলেননি। শৃঙ্খলা ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিষয়টি নিয়ে অস্থির হওয়ার কিছু নেই। জাপা ভাঙেনি। কোনও ভাঙনের মুখে পড়েনি। যেকোনও ব্যক্তি যেকোনও ঘোষণা দিলেই তো তা বাস্তবায়িত হয় না।’

এরআগে, মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে দলীয় প্যাডে নিজেকে সংসদে বিরোধীদলীয় নেতার পদে নিয়োগ দিতে স্পিকারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে চিঠি দেন জিএম কাদের। এরপর দিন বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) জিএম কাদেরের চিঠির বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে তা গ্রহণ না করার অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দেন রওশন এরশাদ। এরই মধ্যে দিয়ে মূলত জাপায় গৃহবিবাদ শুরু হয়।