চোখ ভেজালো তাসকিন

উইকেট নিয়ে দু’হাত প্রসারিত করে ‘উড়ে’ চলেছেন তাসকিন আহমেদ। লাল-সবুজের জার্সিতে তাকে এই দৃশ্যে অনেকবারই দেখা গেছে। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপেও দেখা যাবে এই আশা করেছেন অনেকে। তাসকিন নিজেও তেমন কিছু উপহার দেওয়ার আশায় একটু হুড়োহুড়ি করে হলেও ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ফেরেন।

কিন্তু বাংলাদেশের ঘোষিত বিশ্বকাপে দলে নেই তাসকিন আহমেদ। সেই কষ্ট তিনি তাৎক্ষনিক সহ্য করতে পারেননি। দুঃখ তাই কান্না হয়ে দু’চোখ দিয়ে ঝরেছে। বিশ্বকাপে খেলা প্রত্যেক খেলোয়াড়েরই স্বপ্ন। ২০১১ সালে ঘরের মাঠে বিশ্বকাপে সেই স্বপ্নে ধাক্কা খেয়েছিলেন মাশরাফি। তিনিও সেবার কেঁদেছিলেন। কেঁদে ফেলেছিলেন। এবার চোখ ভিজলো তাসকিনের।

২০১৫ বিশ্বকাপে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ নয় উইকেট নিয়েছিলেন তাসকিন। তবে এবার সুযোগ পাওয়া নিয়ে সংশয় ছিল। চোট থেকে শতভাগ ফিট হতে পারেননি তিনি। বিশ্বকাপের মাস দেড়েক বাকি আছে। তবে বৈশ্বিক আসরের আগে এত বড় ঝুঁকি নেননি নির্বাচকরা।

তাই দলে জায়গা মেলেনি তাসকিনের। মঙ্গলবার শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের কনফারেন্স রুমে দল ঘোষণা হলো। তাসকিন তখন পাশের একাডেমি ভবনে। দলে নেই জেনে মন খারাপ। পরে সংবাদমাধ্যমের সামনে আসতেই কান্না চোখ ফেঁটে বেরিয়ে এলো। কাঁদতে কাঁদতেই বললেন, ‘সবাই যেটা ভালো মনে করছেন তাই করেছেন।’