ময়মনসিংহে শ্যালীকাকে ধর্ষণ, দুলাভাই গ্রেফতার

ষ্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ময়মনসিংহ ২০ জুলাই :
ময়মনসিংহে সদর উপজেলায় বিভিন্ন প্রলোভনে ব্যার্থ হয়ে ১২ বছর বয়সী শ্যালীকাকে জোরপূর্বক উঠিয়ে নিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগে বড় বোনের স্বামী আঃ আওয়াল (৩০) নামে ( নির্যাতিতার দুলাভাই) একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, এরআগে গত ১৭ জুলাই ময়মনসিংহ সদর উপজেলার মধ্যবাড়েরার পাড় গ্রামের ১২ বছরের কিশোরীকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায় আপন বড় বোনের স্বামী আওয়াল। পরে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর থানার ভাংনাহাটি এলাকার জৈনক আফাজ উদ্দিনের ভাড়া বাসায় নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ঘটনার ৫/৬ দিন আগে স্বামী স্ত্রী থাকবে বলে ওই বাসা ভাড়া নেয় ধর্ষক আওয়াল। ধর্ষিতা কিশোরী ভয়ে লজ্জায় কাউকে কিছু না বলে ওই বাসায় রাত্রী যাপন করে। পরের দিন সকালে তাকে ভয় দেখিয়ে অন্য জায়গায় নিয়ে যায় ধর্ষক।

এবিষয়ে ধর্ষিতার পরিবার কোতোয়ালী মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পরে সদর সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল আমিন ও কোতোয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদল ইসলাম বিষয়টিকে গুরত্বের সাথে নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহনে সচেষ্ট হন।

ঘটনা তদন্তে ওসি তদন্ত খন্দকার শাকের আহমেদের সার্বিক সহযোগিতায় মাঠে নামেন তদন্তকারী অফিসার এসআই মাহবুব অর রশিদ। পরে ১৯ জুলাই গাজীপুর সদর থানাধীন চৌরাস্তা বর্ষা সিনেমা হলের পিছনে হাজী মার্কেট এলাকায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষক আওয়ালকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে একই এলাকায় তার চাচাতো ভাইয়ের বাসা থেকে ধর্ষিতা কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় কোতয়ালী মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষক আঃ আওয়ালের নামে মামলা হয়েছে। থানা পুলিশ আসামীকে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরন করলে আসামি ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় বলে জানায় থানা পুলিশ।