দেড় হাজার কিলোমিটার পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র প্রদর্শন ইরানের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
১ হাজার ৪৫০ কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম— এমন ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করেছে ইরান। বুধবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে দেশটির আধা সরকারি বার্তাসংস্থা তাসনিম।

নতুন এই ক্ষেপণাস্ত্রের নাম দেয়া হয়েছে ‘খেইবারশিকান’। বুধবার ইরানের সেনাবাহিনীর সবচেয়ে অভিজাত অংশ রেভল্যুশনারি গার্ডের (আইআরজিসি) ক্ষেপণাস্ত্র ঘাঁটিতে এটি প্রদর্শন করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে তাসনিম নিউজের প্রতিবেদনে।

বিশ্বে বর্তমানে দেড় হাজার কিলোমিটার বা তার চেয়ে কিছু কম-বেশি মাত্রার দূরত্বের লক্ষ্যবস্তুকে আঘাত হানতে সক্ষম অন্যান্য ক্ষেপণাস্ত্রের তুলনায় খেইবারশিকানের ওজন তিন ভাগের একভাগ বলে উল্লেখ করা হয় প্রতিবেদনে।

আরো বলা হয়, আইআরজিসির নিজস্ব উদ্যোগে তৈরি এই ক্ষেপণাস্ত্রটি অত্যন্ত দ্রুত ও সাবলীলভাবে ১ হাজার ৪৫০ কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুকে আঘাত করতে পারে ও এক্ষেত্রে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যাবস্থাকে ভেদও করতে সক্ষম খেইবারশিকান।

ইরানের পরমাণু প্রকল্প নিয়ন্ত্রণে ২০১৫ সালে ইরান, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি ও রাশিয়ার স্বাক্ষরিত চুক্তি জ্যাকোপা ফের কার্যকর করতে অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় আলোচনা চলছে। গত বছর নভেম্বরে এই আলোচনা শুরু হলেও এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি আসেনি সেখান থেকে।

ইরানের ক্ষমতাসীন সরকার অবশ্য এজন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছে। দেশটির শীর্ষ নিরাপত্তা কর্মকর্তা আলি শামখানি বুধবার এক টুইটবার্তায় এ সম্পর্কে বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান থেকে স্পষ্ট বোঝা যায় যে ভিয়েনার সংলাপকে এগিয়ে নিয়ে যেতে প্রকৃতপক্ষে তাদের কোনো পরিকল্পনা নেই।’