৪৯ দিন পর ঢাকা ছাড়ল ট্রেন

টানা ৪৯ দিন পর সারাদেশে ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক আসন ফাঁকা নিয়েই ঢাকা ছাড়ছে ট্রেনগুলো। তবে প্রথমদিন স্টেশনে যাত্রীর চাপ ছিল কম। প্ল্যাটফর্মগুলো ছিল অনেকটা ফাঁকা।
সোমবার (২৪ মে) সকাল সাড়ে ৮টায় কমলাপুর রেলস্টেশনে সরেজমিন দেখা যায়, ট্রেন ছাড়লেও যাত্রীর চাপ কম। প্লাটফর্ম অনেকটাই ফাঁকা। রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী ও জিআরপি থানা পুলিশ সামাজিক দূরত্ব মেনে ট্রেনে ওঠার বিষয়টি নিশ্চিত করছে। ট্রেনে একটি করে আসন ছেড়ে দিয়ে বসতে দেখা গেছে যাত্রীদের।

এ সময় স্টেশনে ৭ নম্বর প্ল্যাটফর্মে দাঁড়িয়ে ছিল চট্টগ্রামগামী কর্ণফুলী কমিউটার। ট্রেনের ভেতরে যাত্রীরা আসন ফাঁকা রেখে বসেছেন। সকাল ৯টায় ট্রেনটি স্টেশন ছেড়ে যায়। তবে প্রথম দিন কর্ণফুলী কমিউটার নির্ধারিত সময়েই চেয়ে ১৫ মিনিট পরে ঢাকা ছেড়েছে।
এর আগে ভোরে ঝারিয়া ঝাঞ্জাইলের উদ্দেশে ছেড়ে যায় বলাকা কমিউটার। সকাল সাড়ে ৬টায় সিলেটগামী পারাবত এক্সপ্রেস এবং সকাল পৌনে ৮টায় চট্টগ্রামগামী মহানগর প্রভাতী এক্সপ্রেস ছেড়ে যায়।
কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার মোহাম্মদ মাসুদ সারওয়ার বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে রেল চলছে। ট্রেন স্যানিটাইজ করা হয়েছে। যাত্রীদের জীবাণুনাশক স্প্রে করা হচ্ছে। সকাল থেকে ৪টা ট্রেন ছেড়ে গেছে। স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে।
এদিকে রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন রবিবার (২৩ মে) রেলভবনে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের বলেন, সরকারের সব নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে সোমবার থেকে আমরা রেল চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
তিনি বলেন, বর্তমানে আমাদের ১০৮টি আন্তঃনগর ট্রেন রয়েছে। এর মধ্যে ১৪ জোড়া তথা ২৮টি ট্রেন চালাব। টিকিট অনলাইন থেকে সংগ্রহ করতে হবে। সংক্রমণের কারণে কাউন্টারে কোনো টিকিট রাখা হয়নি। এ ছাড়া ১৮টি কমিউটার ট্রেন চালানো হবে।