১ জানুয়ারি থেকে পূর্বাচলে হচ্ছে বাণিজ্য মেলা!

করোনায় বন্ধ থাকা সারা দেশের আবারও সকল ক্ষেত্রে প্রাণ ফিরতে শুরু করেছে। গত দেড় বছর যাবৎ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে শুরুকরে দেশের অনেক কিছুই অচল ছিলো প্রায়। বানিজ্য মেলও তার ব্যাতিক্রম নয়। এখন সব কিছু স্বাভাবিক হচ্ছে।

তাই আগামী বছর ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা রাজধানীর পূর্বাচলে বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশীপ এক্সিবিশন সেন্টারে আয়োজনের প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার।

২৬তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা আয়োজনের প্রস্তুতি নিতে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোকে (ইপিবি) চিঠি দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। সোমবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এক চিঠিতে ইপিবিকে মেলা আয়োজনের অনুমোদন দেওয়া হয়।

পূর্বাচলে স্থাপিত বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশীপ এক্সিবিশন সেন্টারে এ বছরই প্রথম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা আয়োজনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের বিস্তার বাড়তে থাকায় তা বাস্তবায়ন সম্ভব হয়নি।

দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হওয়ায় পূর্বাচলে মেলা আয়োজনের অনুমোদন দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

গত ৭ ফেব্রুয়ারি বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশীর কাছে বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারটি হস্তান্তর করেন ঢাকায় নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত লি জিমিং। এখন থেকে এই স্থায়ী কেন্দ্রেই বাণিজ্য মেলার আয়োজন করা হবে।

১৯৯৫ সাল থেকে ঢাকার শেরে বাংলা নগরে এ মেলার আয়োজন করে আসছে ইপিবি। এতে দেশ-বিদেশের কয়েকশ’ প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়ে তাদের পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রি করে থাকে।

এ মেলা থেকে দেশের ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানগুলো অনেক রপ্তানি আদেশ (অর্ডার) পেয়ে থাকে। এছাড়া রাজধানীবাসিসহ দেশের বিভিন্ন জেলার নাগরিকরাও মেলায় গিয়ে কেনাকাটা করেন।

প্রতিবছর জানুয়ারির ১ তারিখ প্রধানমন্ত্রী এ মেলার উদ্বোধন করেন। করোনার কারণে চলতি বছর বাণিজ্য মেলা হয়নি।