হজে যাচ্ছেন চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা

ঢাকাই সিনেমার মিষ্টি নায়িকা দিলারা হানিফ পূর্ণিমা। সবাই তাকে পূর্ণিমা নামেই ডাকেন। অনেকদিন হয় কোনো সিনেমা মুক্তি পায় না তার। তবে দুটি ছবি তার নির্মাণাধীন। আপাতত নেই কোনো কাজ। তাই ওমরাহ হজে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই নায়িকা।

আজ রোববার (২৯ ডিসেম্বর) এই কথাই নিশ্চিত করলেন তিনি। পূর্ণিমা বলেন, ‘অনেক আগে থেকেই ইচ্ছা ছিলো পবিত্রভূমি মক্কা-মদিনায় যাবো, ওমরাহ হজ পালন করবো। অবশেষে আল্লাহ রহমত করলেন, ইচ্ছাটা পূরণ হতে যাচ্ছে। আগামীকাল সোমবার ঢাকা ছাড়বো। ৯ দিনের জন্য হবে এই সফর। সবার কাছে দোয়া চাই আমি।’

এদিকে হজ থেকে ফিরে আর অভিনয় করবেন না পূর্ণিমা, এমন একটি গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। এ প্রসঙ্গ উঠতে হেসে উড়িয়ে দিলেন এই অভিনেত্রী। তিনি বলেন, ‘এটা মিথ্যা খবর। বছরের শেষ জোকসও বলা যায়। অভিনয় আমার পেশা। ধর্ম পালন করাটা আমার দায়িত্ব।’

জাকির হোসেন রাজুর পরিচালনায় ১৯৯৭ সালে রিয়াজের বিপরীতে ‘এ জীবন তোমার আমার’ ছবি দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে তার। এরপর বাকিটুকু সাফল্যেমাখা এক গল্প।

দীর্ঘ ক্যারিয়ারে পূর্ণিমা উপহার দিয়েছেন বহু ব্যবসাসফল সিনেমা। রিয়াজ, রুবেল, মান্না, আমিন খান, ফেরদৌস, শাকিব খানদের মতো ইন্ডাস্ট্রির সেরা নায়কদের বিপরীতে কাজ করে সফল হয়েছেন।

তার উল্লেখযোগ্য ছবির মধ্যে আছে- ‘মনের মাঝে তুমি’, ‘হৃদয়ের কথা’, ‘জামাই শ্বশুর’, ‘স্বামী স্ত্রীর যুদ্ধ’, ‘যোদ্ধা’, ‘ভালোবাসার লাল গোলাপ’, ‘শাস্তি’ ও ‘শোভা’।

২০১০ সালে ‘ওরা আমাকে ভালো হতে দিল না‘ ছবির জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান তিনি সেরা অভিনেত্রী হিসেবে।

বর্তমানে নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল পরিচালিত ‘গাঙচিল’ ও ‘জ্যাম’ নামে দুটি ছবিতে কাজ করছেন পূর্ণিমা। তার মধ্যে ‘গাঙচিল’ ছবিতে পূর্ণিমার নায়ক ফেরদৌস এবং ‘জ্যাম’ ছবিতে আরিফিন শুভ। দুটি ছবি আগামী বছর মুক্তি পাবে বলে জানা গেছে।

ব্যক্তিজীবনে ২০০৭ সালের ৪ নভেম্বর পারিবারিকভাবে আহমেদ জামাল ফাহাদকে বিয়ে করেন পূর্ণিমা। ২০১৪ সালের ১৩ এপ্রিল তিনি প্রথম কন্যাসন্তানের মা হন। তার মেয়ের নাম আরশিয়া উমাইজা।