স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মিজানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

মারফুয়া আক্তার মুনা : ময়মনসিংহ সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের স্থগিতকৃত ১ নং যুগ্ম আহবায়ক মোঃ মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে সদর উপজেলা এলাকাবাসী।

শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) বিকালে চরলক্ষ্মীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, ৬ নং চরঈশ্বরদিয়া ইউনিয় আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ ওসমান গনি, ইউনিয়ন কৃষকলীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল হেকিম মন্ডল, বীর মুক্তিযোদ্ধা চান মিয়া, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আইনুল হক, খলিলুর রহমান, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সদস্য মফিদুল, ইউনিয়ন যুবলীগ সদস্য আলিমুল হাসান মন্ডল, মেছদাকুর রহমান তমাল প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মিজানুর রহমান বলেন, ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয় কর্মী হিসাবে কাজ করে রাজনৈতিক ধারাবাহিকতায় আজ স্বেচ্ছাসেবক লীগের রাজনীতিতে যুক্ত রয়েছি। ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সদস্য হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেছি। সৈরাচারী খালেদা বিরোধী আন্দোলনে অংশ নিয়ে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলন সংগ্রামে আওয়ামী লীগের পতাকাতলে মাঠে কাজ করেছি।

তিনি বলেন, আওয়ামী একজন সক্রিয় কর্মী হিসাবে গত ৬ নভেম্বর ২০২০ সালে আমাকে ময়মনসিংহ সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের নবগঠিত কমিটিতে ১ নং যুগ্ম আহবায়ক হিসাবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তবে অত্যান্ত পরিতাপের বিষয় একটি রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের মিথ্যাচার ও অপপ্রচারের প্রেক্ষিতে আমাকে বাদ দিয়ে উক্ত কমিটি পুনরায় প্রকাশ করা হয়। যেখানে আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের কোনরুপ প্রমাণ ছাড়াই সাংগঠনিক শাস্তির সম্মুখীন হতে হয়েছে আমাকে। তবে স্বেচ্ছাসেবক লীগ জেলা কমিটি কর্তৃপক্ষ আমার পদ স্থগিত আদেশের কোনরূপ চিঠি আমাকে দেয়নি । তবে পূর্ব কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার চিঠি আমি পেয়েছিলাম।

তিনি আরও বলেন, আমার নামে পারিবারিক দ্বন্দের কারণে ২০১৪ সালে একটি মামলা হয়। যা থেকে ২০১৬ সালে বিজ্ঞ আদালত আমাকে বেকসুর খালাস প্রদান করেন। এছাড়া বাকৃবিতে সাইকেল চুরির মিথ্যা অভিযোগে আমার ছবি ফটোশপের মাধ্যমে ভূয়া ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে অপপ্রচার চালানো হয়। যা মিথ্যা, বানোয়াট উদ্দেশ্যমূলক। আমি এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। ঘটনা সত্য হলে বাকৃবি প্রশাসন আমার বিরুদ্ধে কোন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করে নাই কেন তা আমার প্রশ্ন?

মিজানুর রহমান বলেন, আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক আদর্শ বুকে ধারন করে পথ চলা একজন কর্মী হিসাবে আমি সকল স্থরের নেতৃত্বের কাছে আকুল আবেদন জানাচ্ছি। যেন আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ ও অপপ্রচারের সত্যতা নিশ্চিত করা হয়। প্রমাণ না পেলে আমাকে যেন আমার পদে বহাল রাখা হয়।

৬ নং চরঈশ্বরদিয়া ইউনিয় আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ ওসমান গনি বলেন, আমি ৪০ বছর যাবৎ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয়। আমি মিজানুর রহমানকে ব্যাক্তিগতভাবে চিনি। সে এলাকায় জনপ্রিয় ও নিবেদিত একজন আওয়ামী লীগ কর্মী। তার বিরুদ্ধে ষড়যন্তমূলক মিথ্যাচারের প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এবং জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি তার বিরুদ্ধে আনিত স্থগিত আদেশ তুলে নিয়ে পূর্ব পদে যেন বহাল রাখা হয়।