স্বামীর পিঠে চড়ে ভোট দিতে পারায় খুশি ত্রিশালের রওশন

রবিবার (২৮ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার আমিরাবাড়ি ইউনিয়নের ৯৮ নম্বর কাঁচাচড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্রে ভোট দিতে আসেন রওশন।

ভোট দিয়ে রওশন আক্তার বলেন, ‌‘আমার একটা ভোটও মানুষের প্রয়োজনে আসতে পারে। কিন্তু আমি যদি বাসায় বসে থাকতাম তাহলে ভোটটা দেয়া হতো না। প্রার্থীরা আমাকে দাম না দিলেও আমি আমার মূল্যবান ভোটটা নষ্ট করতে চাই না। তাই আমি ভোট দিতে আসছি। ভোট দিতে পেরে খুব ভালো লাগছে।’

রওশনের স্বামী সোহেল মিয়া বলেন, ‘স্ত্রীর চলাফেরার সমস্যার জন্য আমিই তার কাছে থেকে সহযোগিতা করি। ভোটের ব্যাপারে সে অনেক সচেতন। তার আগ্রহ দেখেই তাকে নিয়ে এসেছি ভোট দেওয়ানোর জন্য।’

তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে ময়মনসিংহ জেলার তিনটি উপজেলা ত্রিশাল, মুক্তাগাছা ও সদরের ২৭টি ইউনিয়নে মোট ১৮২ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

২৯৬ ভোটকেন্দ্রে ৭ লাখ ৫০ হাজার ৬৯৯ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকারের সুযোগ পাচ্ছেন। যেখানে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ৩ লাখ ৮১ হাজার ৫০৩ জন ও নারী ৩ লাখ ৬৯ হাজার ১৯৬ জন।

রওশন আক্তারের বয়স যখন ৫ বছর তখন টাইফয়েডে অচল হয়ে যায় তার দুই পা। হামাগুড়ি দিয়ে চলতে হয় তাকে। তবুও ভোটের দিন চলে এসেছেন ভোটকেন্দ্রে। স্বামীর পিঠে চড়ে এসে দিয়েছেন ভোট। -বি বার্তা