সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়ালিদ আল মোয়ালেম আর নেই

সিরিয়ায় শীর্ষ কূটনীতিক এবং দেশটিতে দীর্ঘদিন ধরে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকা ওয়ালিদ আল মোয়ালেম (৭৯) মারা গেছেন। তিনি ছিলেন প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের কট্টর সমর্থক। সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের খবরে সোমবার সকালের দিকে তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়েছে।

তার মৃত্যুর সঠিক কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হয়নি। দীর্ঘদিন ধরেই এই প্রবীণ রাজনীতিবিদ নানা রকম স্বাস্থ্যগত জটিলতায় ভুগছিলেন। তার হৃদযন্ত্রেও নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিয়েছিল।

ওয়ালিদ আল মোয়ালেম বা’য়াথ পার্টির একজন সদস্য ছিলেন। তিনি ২০০৬ সালে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব শুরু করেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি এই পদে বহাল ছিলেন। অপরদিকে ২০১২ সালে তাকে উপ-প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে বসানো হয়। তিনি সে দায়িত্বও পালন করে আসছিলেন।

সিরিয়া সরকারের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র রয়টার্সকে জানিয়েছে, প্রবীণ কূটনীতিক ফয়সাল মেকদাদকে মোয়ালেমের স্থলাভিষিক্ত করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ওয়ালিদ আল মোয়ালেম যুক্তরাষ্ট্রে সিরিয়ার দূত হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

তবে তার সময়ে ১৯৯০ সালে ইসরায়েলের সঙ্গে শান্তি আলোচনা ব্যর্থ হয়ে যায়। সিরীয় সরকারের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তিনি ছিলেন একজন সত্যিকারের দেশপ্রেমিক। তিনি দেশকে প্রচণ্ড ভালোবাসতেন। সোমবার সকালে এই প্রবীণ রাজনীতিবিদের মৃত্যু হয়েছে এবং সোমবার শেষের দিকেই তাকে রাজধানী দামেস্কে সমাহিত করা হবে বলে জানানো হয়েছে। দামেস্কের একটি সুন্নি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন ওয়ালিদ আল মোয়ালেম।

২০১১ সালে সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরু হয়। প্রথম থেকেই বাশার আল আসাদ সরকারের পাশে থেকেছেন ওয়ালিদ আল মোয়ালেম। তিনি তার দেশে অস্থিরতার জন্য যুক্তরাষ্ট্র এবং পশ্চিমা দেশগুলোকে দায়ী করেছেন। দীর্ঘদিনের সহিংসতা ও গৃহযুদ্ধে হাজার হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। অপরদিকে কয়েক লাখ মানুষ বাস্তুহারা হয়ে পড়েছে।