সম্প্রীতি বজায় রেখে উৎসব পালন করতে হবে : ইউএনও আক্তারুজ্জামান

11
সম্প্রীতি

এইচ এম জোবায়ের হোসাইন :
সম্প্রীতি বজায় রেখে আসন্ন দূর্গাৎসব পালনের আহবান জানিয়েছেন ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার আক্তারুজ্জামান।
তিনি বলেন, এ উৎসব যেন নির্বিঘ্নে পালন করতে পারেন সে জন্য উপজেলা প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রয়োজনীয় সকল প্রকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সম্প্রীতি বজায় রেখে উৎসব চলাকালীন সময়ে উপজেলার সকল মন্দিরে সার্বক্ষনিক আনসার সদস্য ও পুলিশ মোতায়েন থাকবে। দুইজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচলনা করা হবে।

উপজেলার সকল পূজা মন্ডপে যেন নির্বিঘ্নে উৎসব পালন করতে পারে তার জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি কন্ট্রেল রুম খোলা হয়েছে। যেকোন প্রয়োজনে বা সমস্যা দেখা দিলে বা সমস্যা হলে তাৎক্ষনিক কন্ট্রোল রুমকে অবহিত করার আহবান জানান তিনি।

সবাইকে সতর্ক থেকে উৎসব পালনের আহবান জানিয়ে ইউএনও আক্তারুজ্জামান আরো বলেন, এ পূজা এমন একটি উৎসব যা সার্বজনিন, আপনারাও সম্প্রতি বজায় রেখে উৎসব পালন করবেন, আতশবাজি করা যাবে না। তিনি জননিরাপত্তা বিভাগের নির্দেশনা মেনে চলার আহবান জানান।

তিনি মঙ্গলবার সকালে সার্বজনীন শারদীয় দূর্গাপূজা উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত প্রস্তুতি মূলক সভায় সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন।

উপজেলা উপজেলা প্রশাসেনর আয়োজনে উপজেলা পরিষদের প্রয়াত ইউএনও রাশেদুল ইসলাম সম্মেলন কক্ষে প্রস্তুতি মূলক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ার্যান আব্দুল রমিতন সরকার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) তরিকুল ইসলাম তুষার, ত্রিশাল থানার অফিসার ইনচার্জ মাইন উদ্দিন, প্রবীণ আওয়ামী লীগনেতা ফজলে রাব্বী, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক এএনএম শোভা মিয়া আকন্দ, আশরাফুল ইসলাম মন্ডল, উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা খানম রুমা, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন, পৌর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল বাতেন, উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মাহির আঞ্জুম, উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি শংকর রায়, সাধারন সম্পাদক প্রণব আচার্য্য, বিশিষ্ট লেখক বাবু নিতাই চন্দ্র প্রমূখ।

প্রস্তুতি মূলক সভায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন সরকার বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রিতি বজায় রাখে আ’লীগ, বিগত করোনা কালীন সময়ে দেশের অনেক ক্ষতি হয়েছে, আমরা হারিয়েছি অনেক স্বজনকে। সে বিষয়টি মাথায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা মন্ডপে প্রবেশ করার আহবান জানান তিনি। দেশ এখনো করোনামুক্ত হয়নি, তাই সকলকে সতর্ক থাকতে হবে।

ত্রিশাল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাইন উদ্দিন বলেন, আজানের সময় মাইক বন্ধ করে রাখতে হবে, মানুষের স্বাভাবিক চলাচলের বাহিরে আলোকসজ্জা করতে হবে। যেকোনো সমস্যা দেখা দিলে তিনি তাৎক্ষনিক জানানোর আহবান জানান। তিনি বলেন, পুলিশ ও জনগণের মাঝে কোন বিবেদ রাখা যাবে না। যেকোন বিষয়ে সবসময় পুলিশ পাশে থাকবে।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন জানান, এ বছর ত্রিশাল উপজেলার ৬৯টি পূজামন্ডপে দূর্গাৎসব অনুষ্ঠিত হবে। দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের বরাদ্ধ থেকে উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে প্রায় ৩৫টন চাল বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছে। যার বিতরণ কার্যক্রম বুধবার থেকে শুরু হবে।