সততার সঙ্গে সাংবাদিকদের সঠিক তথ্য তুলে ধরতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, সততার সঙ্গে সাংবাদিকদের সঠিক তথ্য তুলে ধরতে হবে। সমাজের নানা অসঙ্গতি তুলে ধরার পাশাপাশি বিভিন্ন সম্ভাবনার কথাও তুলে ধরতে হবে। সমাজকে এগিয়ে নিতে দুঃসাহসিকভাবে সত্যকে তুলে ধরতে হবে। আশা করি অতীতের ন্যায় ভবিষ্যতেও আপনারা তা করতে অবিচল থাকবে।

সোমবার (৪ জানুয়ারি) চাঁদপুর প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজনের আয়োজন করা হয়। সকাল ৯টায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণ থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়। সেখানে চাঁদপুর প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক প্রবীণ সাংবাদিক মোহাম্মদ হোসেন খান পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। এরপর সন্ধ্যায় সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

শিক্ষামন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, আমি সাংবাদিক পরিবারের সন্তান হওয়ায় সাংবাদিকদের যে কোন সমস্যা আমাকে পীড়া দেয়। আমি চেষ্টা করি সব সময় সাংবাদিকদের পাশে থাকতে। চাঁদপুর প্রেসক্লাব একটি ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান। আজ এই প্রতিষ্ঠানের সুবর্ণজয়ন্তীতে সকলকে অভিনন্দন জানাই।

দীপু মনি আরো বলেন, করোনায় অবদানের জন্য বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা জানানোয় চাঁদপুর প্রেসক্লাবকে ধন্যবাদ জানাই। মানুষের কাজের মূল্যায়ন করা হলে তাদের কাজের প্রতি আগ্রহ আরো বেড়ে যায়। এতে করে তারা আরো বেশি করে কাজ করতে অনুপ্রানিত হয়।

দীপু মনি আরো জানান, আমরা যারা জনপ্রতিনিধি আছি, আমাদের স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও দায়বদ্ধতার জায়গা আছে। আমাদের কাজকর্মে যদি কোন ভুলত্রুটি থাকে তা সাংবাদিকরা যদি তাদের লেখনির মাধ্যমে তুলে ধরে তবে আমরা তা শুধরে নিতে পারবো। আমি দেশের কল্যাণে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানাই।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলনের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক এএইচএম আহসান উল্লাহ ও রহিম বাদশা অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম, আওয়ামী লীগের তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডা. জেআর ওয়াদুদ টিপু, চাঁদপুর পৌর মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মু. মফিজুর রহমান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে করোনাকালীন সময়ে সাধারণ মানুষের জন্য বিশেষ অবদান রাখায় চিকিৎসক, নার্স, সামাজিক সংগঠনসহ বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

এর আগে, জেলার দুই শতাধিক সংবাদকর্মীকে নিয়ে সাংবাদিক সমাবেশ, প্রেসক্লাব পরিবারের সদস্যদের নিয়ে খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠান উদযাপিত হয়। পরে ২০২১ সালের নবগঠিত কার্যকরি পরিষদের অভিষেক অনুষ্ঠিত হয়। পরে রাতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উদযাপন সমাপ্ত হয়।