শুভ জন্মদিন ইলিয়াস কাঞ্চন

ঢাকাই সিনেমার অন্যতম একজন চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। একসময় ঢাকাই সিনেমার বাদশা ছিলেন তিনি। এখনো সব কালের সেরা ছবি হয়ে আছে তার অভিনীত ‘বেদের মেয়ে জোছনা’। একই সঙ্গে তিনি রোমান্টিক, অ্যাকশন, কমেডিয়ান এবং পরিবারের সুবোধ বালক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার ২৪ ডিসেম্বর এই চিরসবুজ নায়কের শুভ জন্মদিন। বাংলাদেশের বৃহৎ সামাজিক আন্দোলন নিরাপদ সড়ক চাই এর প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ‘সড়ক যোদ্ধা’ ইলিয়াস কাঞ্চন এর আজ ৬৩তম জন্মদিন আজ। জাগো নিউজ পরিবারের পক্ষ থেকে রইল ইলিয়াস কাঞ্চনের জন্য অনেক শুভকামনা।

বাংলা চলচ্চিত্রে গত শতাব্দীর সোনালি যুগের অভিনেতা কাঞ্চন কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ উপজেলায় আশুতিয়াপাড়া গ্রামে ১৯৫৬ সালের ২৪ শে ডিসেম্বর জন্মগ্রহন করেন। তার বাবার নাম হাজী আব্দুল আলী, মাতার নাম সরুফা খাতুন।

শিক্ষাজীবনে ইলিয়াস কাঞ্চন ১৯৭৫ সালে কবি নজরুল সরকারী কলেজ থেকে এইচ.এস.সি পাস করেন। পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতক্তোর শেষ করেন। কৈশোর থেকেই অভিনয়ের প্রতি দুর্বলতা ছিলো। তাই যুক্ত হয়েছিলেন বেশ কিছু নাট্য সংগঠনের সাথে। নানা পথ পেরিয়ে অবশেষে কিংবদন্তি নির্মাতা সুভাষ দত্তের ‘বসুন্ধরা’ ছবি দিয়ে ১৯৭৭ সালে চলচ্চিত্রে ববিতার নায়ক হয়ে আবির্ভাব ঘটে ইলিয়াস কাঞ্চনের।

সময়ের সাথে সাথে তিনি নিজেকে চলচ্চিত্রের কিংবদন্তির পথেই নিয়ে এসেছেন। কাঞ্চন ৩৫০টিরও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। তারমধ্যে বেশিরভাগ ছবিই ব্লকবাস্টার হিট ছিলো।

আর ১৯৮৯ সালে মুক্তি পাওয়া তার অভিনীত ‘বেদের মেয়ে জোছনা’র ব্যবসায়িক সাফল্য এখনো ঢাকাই ছবিতে রূপকথা হয়ে আছে। তোজাম্মেল হক বকুলের পরিচালনায় এই ছবিতে কাঞ্চন জুটি বেঁধেছিলেন অঞ্জু ঘোষের সাথে। সীমাহীন কষ্টের এক অসাধারণ প্রেমের গল্প বেদের মেয়ে জোছনা এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সর্বাধিক ব্যবসাসফল ও জনপ্রিয় চলচ্চিত্র হিসেবে স্বীকৃত।

সুভাষ দত্ত পরিচালিত ‘বসুন্ধরা’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় ইলিয়াস কাঞ্চনের। ১৯৭৭ সালের ২৬ মার্চ তিনি প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান। একই বছর ৩১ ডিসেম্বর ছবিটি মুক্তি পায়। এ ছবিতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন ববিতা। এরই মধ্যে অভিনয় জীবনের চার দশক পার করেছেন এই গুণী অভিনেতা।