শরীয়তপুরে ১৫’শ দরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছেন সাংসদ অপু

রুপক চক্রবর্তী শরীয়তপুর :
বর্তমানে সারা বিশ্ব নভেল করোনা ভাইরাস (কোভিট-১৯) এ আক্রমনে আক্রমনিত। ইতিমধ্যে এ ভাইরাস বাংলাদেশও আঘাত করেছে। গত ২৫শে মার্চ হতে ৩১শে মার্চ পর্যন্ত সারাদেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যর দোকান, ফার্মেসী ব্যতিত সকল পন্য’র দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সকলকে অতিব প্রয়োজন ব্যতিত ঘর থেকে বের না হবার জন্য বলা হয়েছে। সারা দেশের ন্যায় শরীয়তপুর জেলায় একই পরিস্থিতি। ইতিমধ্যে স্থবির হয়ে পড়ছে বিভিন্ন স্থান। কাজ কর্ম বন্ধ হয়ে গেছে। এতে সমস্যায় পড়ছে দিনমজুর বা নিন্মবিত্তের জনগন। তাদের এই সমস্যা কিছুটা হলেও অবসানের জন্য আজ শরীয়তপুরে ১৫০০ দরিদ্র পরিবারের মাঝে স্থানীয় সাংসদ ইকবাল হোসেন অপু’র পিতার নামে প্রতিষ্ঠিত আলহাজ্ব সুলতান হোসেন মিয়া ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে
খাদ্য সামগ্রী অথাৎ ৫ কেজি চাল, ২ কেজি ডাল, ১টি সাবান, বিতরণ করেছেন শরীয়তপুর ১ আসনের সংসদ সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য ইকবাল হোসেন অপু।

মঙ্গলবার (৩১শে মার্চ) সকাল ১০ টায় শরীয়তপুর শহরের প্রানকেন্দ্র পালং মডেল থানার পশ্চিম গেটে ১৫শত দরিদ্র পরিবারের মাঝে উক্ত খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এসময় অন্যন্যদের মধ্যে
উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান উজ্জ্বল,
জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও শরীয়তপুর জজ কোর্টের জিপি এডভোকেট আলমগীর মুন্সি, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জামাল ফকির, সহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ সহ অন্যন্য সহযোগী সংগঠনের নেতা ও কর্মীবৃন্দ।
সাংসদ ইকবাল হোসেন অপু বলেন, আজ সারাবিশ্ব মহামারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। ইতিমধ্যে এ ভাইরাস বাংলাদেশ ও আঘাত করেছে। করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে স্থবির হয়ে পড়ছে বিভিন্ন স্থান। বিশেষ করে যারা খেটে খাওয়া মানুষ, দিনমজুর বা নিন্মবিত্তের জনগন তাদের কোন সঞ্চিত অর্থ থাকে না। যেহেতু সকল কিছু বন্ধ রয়েছে, কাজ কর্ম বন্ধ রয়েছে তাই যারা খেটে খাওয়া মানুষ তাদের অনেক সমস্যা পড়তে হচ্ছে। তাই আমি আমার যতটুকু সম্ভব তাদের পাশে দাড়ানোর উদ্দেশ্য আমার পিতার নামে প্রতিষ্ঠিত আলহাজ্ব সুলতান হোসেন মিয়া ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ১৫০০ দরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও সবান বিরতন করেছি। এর আগেও আমি জাজিরা উপজেলাতে আমার পিতার নামে
প্রতিষ্ঠিত আলহাজ্ব সুলতান হোসেন মিয়া ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে বেশ কিছু দরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও সবান বিরতন করেছি। আমি জনগণের পাশে সর্বদা ছিলাম, আছি ও থাকবো।