শরীয়তপুরে দস‍্যুতার ঘটনায় প্রেস ব্রিফিং

রুপক চক্রবর্তী শরীয়তপুর :
শরীয়তপুরে দস‍্যুতার ঘটনায় প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার ১৩ মার্চ বিকেল ৪টায় পালং মডেল থানা অডিটোরিয়ামে শরীয়তপুর জেলা পুলিশের পক্ষ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(নড়িয়া সার্কেল) এস. এম. মিজানুর রহমানের
উপস্থিতিতে এক প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(নড়িয়া সার্কেল) . এম. মিজানুর রহমান এক প্রেস রিলিজ এর মাধ্যমে জানান যে, পালং মডেল থানাধীন দাতপুর দক্ষিণ ভাষানচর সাকিনের সৌদি প্রবাসী নেছারউদ্দিন সরদারের স্ত্রী হাসিনা বেগম(৩০), মেয়ে শ্রাবণী(১৫), রাবেয়া(০৫) ও ভাগ্নি ঝর্ণা খাতুনকে ১২ মার্চ বৃহস্পতিবার খাওয়া-দাওয়া শেষে অনুমান সাড়ে ১০টার সময় ঘুমিয়ে পড়েন। পরবর্তীতে রাত ১টার সময় হাসিনা বেগম প্রকৃতির ডাকে ঘরের বাইরে বাথরুমে যায়। এ সুযোগে ঘরের ভেতর উতপেতে থেকে গ্রেফতারকৃত আসামি উপজেলার দাঁতপুর ভাসানচর গ্রামের ইউনুস মাদবরের ছেলে খবির মাদবর(২০) আনাসদ্দি সরদারের ছেলে তাইজদ্দিন সরদার(১৯) ভিক্টিম হাসিনা বেগমের চৌচালা টিনের বসতঘরে ঢুকে আলমারি খুলে মালামাল নেওয়ার সময় হাসিনা বেগম বাথরুম থেকে ফিরে আসে। বসতঘরের দরজায় আসামাত্র আসামীদের দেখে হাসিনা বেগম চিৎকার দিলে আসামীদ্বয় ভিক্টিম হাসিনা বেগমকে চাকু দিয়ে আঘাত করলে হাসিনা বেগমের বুকের ডান পাশে মারাত্মক জখম হয়। তৎক্ষণাৎ পুলিশ খবর পেয়ে আসামীদ্বয়কে চরনেয়ামতপুর এলাকা থেকে জেলা পুলিশের নির্দেশনায় আংগারিয়া পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শক মিন্টু মন্ডলের নেতৃত্বে এ এস আই শাহনেওয়াজ ও এটি এস আই সালাউদ্দিনসহ পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশের আন্তরিক প্রচেষ্ঠায় গ্রেপ্তার করা হয়। হাসিনা বেগম শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে। তার জ্ঞান এখনো ফিরেনি। এ বিষয়ে পালং মডেল থানায় মামলা রুজু করা হয়েছে।

প্রেস ব্রিফিং উপস্থিত ছিলেন, পালং মডেল থানা ইনচার্জ আসলামউদ্দিন, ডামুড‍্যা থানা ইনচার্জ মেহেদী হাসান, সখিপুর থানা ইনচার্জ এনামুল হক এনামসহ শরীয়তপুর জেলায় কর্মরত প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।