রাষ্ট্রপতির ভাই আবদুল হাই’র মৃত্যুতে সাংসদ মাদানীর শোক

এইচ. এম জোবায়ের হোসাইন :
রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের ছোট ভাই ও সহকারী একান্ত সচিব মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই মারা গেছেন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার তার হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ (হার্ট অ্যাটাক) হয়ে যায়। ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) দিবাগত রাত সোয়া ১টার দিকে তার মৃত্যু হয়।
রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন এ তথ‌্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘রাত সোয়া ১টায় আবদুল হাই মারা যান। তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। ভেন্টিলেশনে থাকা অবস্থায় হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল তার। তার মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। শনিবার স্বাস্থ্যবিধি মেনে কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে জানাজা ও পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।’
আবদুল হাইয়ের শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দিলে গত ২ জুলাই নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। গত ৫ জুলাই ঢাকা সিএমএইচের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে আইসিইউতে রাখা হয়।
আবদুল হাইয়ের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া। শোক প্রকাশ করেছেন সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী ও চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী। এক শোক বার্তায় তারা মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
মহামান্য রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ’র ছোট ভাই আব্দুল হাই এর মৃত্যুতে গভীর শোক ও বেদনা প্রকাশ করছেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ময়মনসিংহ-৭ ত্রিশাল আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন মাদানী। শোক বার্তায় সাংসদ মাদানী বলেন, তিনি ছিলেন একজন রণাঙ্গণের বীর সেনা, তাঁর মৃত্যুতে জাতী একজন শ্রেষ্ট সন্তানকে হারালো। মহান আল্লাহ পাক উনাকে জান্নাতবাসী করুন এবং পরিবার পরিজন কে এই শোক সইবার মানসিক শক্তি দান করুন।