যে পাঁচটি পৃথিবীর সুখী দেশ

পৃথিবীর প্রতিটা মানুষ সুখে বাঁচতে চায়। সুখে থাকার জন্যই তো এত পরিশ্রম! বর্তমান পরিস্থিতি অনুযায়ী কোন দেশ কতটা সুখী, তা নির্ধারিত হয় সেই দেশ কতটা সুন্দর করে করোনা পরিস্থিতিকে সামলে নিয়েছে তার ওপর। সেক্ষেত্রে ভারতের মতো দেশে যখন দুটো মাস্ক পরেও করোনা হচ্ছে, তখন এইসব দেশ সাবধানতা মেনে করোনার সঙ্গে লড়াই করে জিতে যাচ্ছে। এই হিসেবের নিরিখে ২০২১ সালে এই পাঁচটি দেশ সুখে আছে। এখানকার মানুষেরা ঘুরে বেড়াচ্ছে, জীবনকে উপভোগ করছে। সচেতন দেশবাসীর জন্যই একটা দেশ সুখী হতে পারে। জেনে নেওয়া যাক সেই সব সুখী দেশের নাম।

১) ফিনল্যান্ড

ফের বিশ্বের সবচেয়ে সুখী দেশের তকমা পেল ফিনল্যান্ড। বিগত চার বছর ধরে এই অদ্ভুত ক্যাটাগরিতে এগিয়ে রয়েছে এই দেশ। সেরা শিক্ষাব্যবস্থার নিরিখে এই দেশ চার বছর ধরে বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে সুখী। দীর্ঘ লকডাউনের পর এই দেশে এখন ক্যাফে, বার, সিনেমা হল, রেস্টুরেন্ট ইত্যাদি খুলে যাচ্ছে ধীরে ধীরে। পাশাপাশি এখন দেশের মধ্যে ঘুরতে পারবে ফিনল্যান্ডবাসীরা।

২) ডেনমার্ক

বিশ্বের সুখী দেশের তালিকায় আরেকটি দেশের নাম চিরকাল বিরাজমান, তা হল ডেনমার্ক। স্পোর্টসের দিক থেকেও ডেনমার্ক সারাবিশ্বে এক পরিচিত নাম। প্রাকৃতিক পরিবেশের সৌন্দর্য এবং শহরের সুন্দর আর্কিটেকচারের টানে স্যুইৎজারল্যান্ডের বেশিরভাগ মানুষ এ দেশে বেড়াতে আসে। এমন একটি দেশ, যে দেশের মানুষরা ভোট তাকে দেয়, যে বেশি ছুটি দেয়। ভাবতে পারেন? কতটা সুখ এবং স্বাধীনতা থাকলে একটা দেশের মানুষ এতটা সাবলীল হয়?

৩) স্যুইৎজারল্যান্ড

ইউরোপের দেশগুলো মধ্যে স্যুইৎজারল্যান্ডকে স্বপ্নের শহর বলা হয়। এই দেশের মানুষ সরকার নির্বাচন করে, বছরে ক’টা ছুটি পাওয়া যাবে দেখে! ‘অ্য স্যুইস হলি ডে’ দেশের মানুষ এবং দেশের বাইরের মানুষের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে এই দেশ করোনা পরিস্থিতির জেরে এখনও দেশের সীমানার মধ্যে বাইরের লোকজনকে প্রবেশ করার অনুমতি দেয়নি।

৪) আইসল্যান্ড

বিশ্বের সবচেয়ে সাজানো এবং ওয়েল মেনটেইন্ড দেশের মধ্যে যে নামগুলি আসে, তার মধ্যে আইসল্যান্ড উল্লেখযোগ্য। সারাবছর এদেশে লাখ লাখ পর্যটকের সমাগম ঘটে। আইসল্যান্ড বিশ্বের মডার্ন দেশগুলির মধ্যে একটা। তাই এই দেশ কোভিড পরিস্থিতি সামলে নিয়েছে। এখনও পর্যটকদের যাতায়াত রয়েছে। সবকিছু হয় খুবই সিস্টেমেটিক ভাবে।

৫) নেদারল্যান্ড

ইউনেস্কো ২০০৩-এর রিপোর্ট অনুযায়ী ডাচ শিশুরা সবচেয়ে সুখী। ২০০৫-এ এই দেশ বিশ্বের সবচেয়ে সুখী দেশ হিসেবে গণ্য হয়। এরপর এই দেশের সম্পর্কে আর কিছু বলার থাকে কি? কোভিড পরিস্থিতিতেও এর অন্যথা ঘটেনি। সরকারের কঠোর নিয়মে এই দেশের মানুষেরা সুস্থ এবং সুখী। প্যান্ডেমিক শেষ হলেই, ভাবুন, আপনার শিশুকে নিয়ে বেড়াতে যাবেন নাকি একবার এই দেশে?