যে কারণে নিজেকে বদলে ফেললেন পূজা

ঢাকাই সিনেমায় এই সময়কার জনপ্রিয় অভিনেত্রীর একজন পূজা চেরি। সিয়াম আহমেদের সঙ্গে জুটি বেঁধে তার করা ‘পোড়া মন’ এবং ‘দহন’ বেশ সফলতা পায়। ‘নূরজাহান’ এবং ‘প্রেম আমার ২’ দিয়েও প্রশংসা কুড়ান নতুন প্রজন্মের এই সম্ভাবনাময় অভিনেত্রী।
এরইমধ্যে নির্মাতাদের আস্থার প্রতীক হয়ে ওঠা পূজা সর্বশেষ লকডাউনের আগের দিন পর্যন্ত জাজ মাল্টিমিডিয়া প্রযোজিত ‘মাসুদ রানা’র শুটিং নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। চট্টগ্রামে টানা ১৮ দিন শুটিং করেন তিনি। সৈকত নাসিরের এ সিনেমার অন্যতম চরিত্র সোহানার ভূমিকায় অভিনয় দেখা যাবে তাকে। চরিত্রটির জন্য নিজেকে বদলেছেন এ নায়িকা। করেছেন কঠোর পরিশ্রম।

সৈকত নাসিরের সঙ্গে পূজার প্রথম কাজ এটি। এ প্রসঙ্গে ‍পূজা বলেন, ‘সৈকত ভাইয়ার সঙ্গে আগে কখনো কাজ করিনি। তাই শুরুতে একটু চিন্তায় ছিলাম কাজটা কেমন হবে! কিন্তু শুটিংয়ে যাওয়ার পর এতো ভালো বোঝাপড়া হয়ে যায় মনেই হচ্ছিল না শুটিং আমরা করছি।’
‘হৃদিতা’ নামের সরকারি অনুদানের আরেকটি সিনেমায়ও কাজ করছিলেন পূজা। কাছাকাছি সময়ে দুটি সিনেমার শুটিং করতে গিয়ে লুক নিয়েও খানিকটা সমস্যায় পড়তে হয় তাকে। তবে পরে সেটিও উতরে গেছেন তিনি।
গান বাদে ‘হৃদিতা’র দৃশ্য ধারণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলেও জানান পূজা। লকডাউনের কারণে আটকে যাওয়া ‘মাসুদ রানা’র ৭০ ভার শুটিং হয়ে গেছে। লকডাউন খুলে গেলে আবারও সিনেমা দুটি নিয়ে ব্যস্ত হয়ে যাবেন এই অভিনেত্রী। এদিকে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে পূজা অভিনীত আরও তিন সিনেমা-‘শান’, ‘জিন’ এবং ‘সাইকো’।