ময়মনসিংহ মহানগরের ৩২ ও ৩৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা

মাসুদ রানা, ময়মনসিংহ ৮ ডিসেম্বর :
বিএনপি জামায়াতের তান্ডব। পুলিশী ধরপাকর। মামলা হামলায় নাজেহাল। ২০০২-২০০৫ সালে বিএনপি জামায়াতের শাসনামলে ঘরে বাইরে তটস্থ সেই দিনগুলো। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বের নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে মাঠে যাদের অবস্থা ছিলো অকুতোভয় সেনানিদের মতোই। সেই নিবেদিত একনিষ্ঠ একঝাক কর্মীবাহিনীকে মূল্যায়ন করা হয়েছে ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের ৩২ ও ৩৩ নং ওয়ার্ডের নতুন কমিটিতে।

গত শনিবার (৭ ডিসেম্বর) রাতে ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব এহ্তেশামুল আলম ও সাধারণ সম্পাদক মোহিত উর রহমান শান্তর স্বাক্ষরিত দলীয় প্যাডে এ কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়।

ময়মনসিংহ আওয়ামী লীগের কিংবদন্তী নেতা সাবেক জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাবেক ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের রাজনৈতিক শক্তির ঘাটি চরাঞ্চল তথা চরঈশ্বরদিয়া এবং চরনিলক্ষীয়া। আওয়ামী লীগের সকল নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে সেখানে নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ ছিলেন তার একক নেতৃত্বে। সে সময় তার নির্দেশনা বাস্তবায়নে বর্তমান মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এহ্তেশামুল আলম সাধারণ সম্পাদক মোহিত উর রহমান শান্তর পাশে থাকা তরুণ সেই মুখ গুলোই স্থান করে নিয়েছে এ নয়া কমিটিতে।

নগরীর চরঈশ্বদিয়া ৩২ নং ওয়ার্ডে ১১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি দেয়া হয়েছে। এতে আহ্বায়ক করা হয়েছে শামসুর রহমানকে। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে যথাক্রমে জুলহাস উদ্দীন, শাহাবুদ্দিন মন্ডল, বাবুল আক্তার, হাজী আনোয়ারুল কাদির, রিয়াজাউল ইসলাম রাসেল, হাবিবুর রহমান চান মিয়া, মাহবুব হোসাইন মাসুদকে। সদস্য করা হয়েছে আবু সাদেক সরকার ও ইদ্রিস আলী টাইগারকে।

একইদিন চরনিলক্ষীয়া শম্ভুগঞ্জ নিয়ে গঠিত ৩৩ নং ওয়ার্ডে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে আহ্বায়ক করা হয়েছে মোঃ মোক্তার হোসেনকে। এতে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা হেলার আহমেদকে। যিনি বিগত ২০০১ সালে বিএনপি জামায়াতের বিরুদ্ধে বর্তমান মহানগর সাধারণ সম্পাদক মোহিত উর রহমান শান্তর সহযোগী হিসাবে দুর্বার আন্দোলনে অংশ নেন। সে সময় ময়মনসিংহের সমালোচিত আওয়ামী লীগের জন্য প্রশাসনিক ত্রাস এসপি কোহিনুরের দুঃশাসনের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলনে নেনে নানা হয়রানি ও জুলুম নিপিরনের শিকার হন। ওই সময় আরও নির্যাতনের শিকার হন আরেক যুগ্ম আহ্বায়ক পদ পাওয়া সাবেক ছাত্রনেতা আহসান হাবীব।

কমিটিতে অন্যান্য যুগ্ম আহ্বায়করা হলেন, আবুল কালাম আজাদ, আনির উদ্দিন, আসলাম উদ্দিন আকন্দ, লিয়াকত হোসেন, জয়েন উদ্দিন আকন্দ, । এতে আব্দুল মান্নান, আজমুর মীর, মফিদুল হক, শ্রী দেব পাল, মজিবুর রহমান সরকার, শাহ আলম, আবুল খায়ের, কামরুজ্জামান কামরুল, সুজন মন্ডলকে সদস্য করা হয়েছে।

ঘোষিত নয়া এ কমিটিতে দলের ত্যাগী, যোগ্য, নিবেদিত তরুণ কর্মীদের স্থান দেয়ায় নগরী জুড়ে ব্যাপক আলোচনা ও অভিনন্দন জানানো হয়েছে মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে। দলের নিবেদিত প্রাণ কর্মীদের মূল্যায়ন করার আওয়ামী লীগের নীতিকে প্রশংসিত করেছে রাজনৈতিক সচেতন মহল। অনুমোদিত কমিটির নেতৃবৃন্দ ফুলেল শুভেচ্ছায় অভিনন্দন জানিয়েছেন ময়মনসিংহ আওয়ামী লীগের কিংবদন্তী নেতা সাবেক ধর্মমন্ত্রী আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মতিউর রহমানকে। একইসাথে ময়মনসিংহ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের নব নির্বাচিত সভাপতি বেগম নুরুন্নাহার বেগম শেফালীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।