ময়মনসিংহে সড়কে স্বামী-স্ত্রী ও ছেলে মেয়েসহ ৪ জনের প্রাণ গেল

ষ্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ময়মনসিংহ ১৬ আগস্ট :
ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলায় বাস ও প্রাইভেটকার সংঘর্ষে স্বামী-স্ত্রী ও ছেলে মেয়েসহ একই পরিবারের ৪ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় শিশুসহ অন্তত আরও ২ জন গুরতর আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। আহতরা হলেন, শিশু নাহিদ (৩), ও প্রাইভেটকার চালক। হতাহতরা সবাই নেত্রকোনার দূর্গাপুর উপজেলার চন্ডিঘর ইউনিয়নের শাকায় গ্রামের বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

শুক্রবার (১৬ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার রামগোপালপুর এলাকার ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কে এ দূর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, রফিকুজজামান (৪৫), স্ত্রী শাহীন আআক্তার (৪০), ছেলে নাদিম (১৯) ও মেয়ে রোনক জাহান(১৩)।

গৌরীপুরে থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিঞা এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, কিশোরগঞ্জগগ্রামী এম.কে সুপার যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে একটি প্রাইভেট কারের সংঘর্ষে জন ৪ নিহত হয়।

তিনি আরও বলেন, বাসটি যাত্রী নিয়ে ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জ যাচ্ছিল। অন্যদিকে প্রাইভেটকারটি গৌরীপুর উপজলার মধুপুর থেকে ময়মনসিংহের দিকে আসছিল। তারা প্রাইভেটকারটির নিয়ে বিয়ের দাওয়াতে টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইল উপজেলায় যাচ্ছিল। পথে দুটি যানের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষের এ দূর্ঘটনা ঘটে।

এতে ঘটনাস্থলেই স্ত্রী শাহিন আক্তার নিহত হন। ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা থেকে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা এসে আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে বাকি তিনজন মারা যান। আহতদের ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তবে নিহত ব্যক্তিদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মমেক হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, রফিকুজ্জামান ঈদের ছুটিতে পরিবার নিয়ে গৌরীপুরে শ্বশুরবাড়ি বেড়াতে গিয়েছিলেন। সেখান থেকেই আজ সকালে বিয়ের দাওয়াতে ঘাটাইল যাচ্ছিলেন। এসময় যাত্রীবাহী বাসটি ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জ যাচ্ছিল। প্রাইভেটকারি ওভারটেক করার সময় এ দূরর্ঘটনা ঘটে। তবে রফিকুজ্জামান একজন ব্যবসায়ী ছিলেন বলে জানা গেছে।