ময়মনসিংহে র‌্যাবের হাতে ৭ প্রতারক আটক, নকল স্বর্ণের বার উদ্ধার

মাসুদ রানা, ময়মনসিংহ ১৮ নভেম্বর :
ময়মনসিংহের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে নকল স্বর্ণের প্রতারক চক্রের ৭ জন সক্রিয় সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪। এ সময় তাদের কাছ থেকে নকল স্বর্ণের বার, স্বর্ণ সদৃশ নকল স্বর্ণের হাতলযুক্ত চামচ, হাতল ছাড়া চামচ, পপ্লাল মেটাল পলিশ, হাতলসহ এক্স ব্লেড, ড্রিল মেশিন, সিএনজি অটোরিক্সা, ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

বুধবার (১৮ নভেম্বর) দুপুরে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন ময়মনসিংহ র‌্যাব-১৪ এর কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিং করে সাংবাদিকদের এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-১৪ অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল এফতেখার উদ্দিন।

এসময় তিনি বলেন, ময়মনসিংহ জেলার বিভিন্ন এলাকায় একটি সংঘবদ্ধ প্রতারকচক্র প্রতারণার মাধ্যমে স্বর্ণ সদৃশ নকল স্বর্ণের বার ব্যবহার করে দীর্ঘদিন যাবৎ সুকৌশলে নিরীহ মানুষকে প্রলোভন দেখিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ ও স্বর্ণালংকার হাতিয়ে নেওয়ার বিষয়ে গত ১২ নভেম্বর একটি অভিযোগ পাওয়া যায়। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১৪ এর আভিযানিক দল ছায়া তদন্ত পূর্বক ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা নিশ্চিত করেন। চক্রটি ময়মনসিংহ জেলাসহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় সহজ সরল নিরীহ মানুষদেরকে জালিয়াতির মাধ্যমে নকল স্বর্ণের বার আসল স্বর্ণ হিসেবে উপস্থাপন করে তাদের নিকট থেকে আসল স্বর্ণ হাতিয়ে নেয়াসহ মোটা অঙ্কের টাকা আত্মসাৎ করে আসছিল । এরই ধারাবাহিকতায় ১৮ নভেম্বর মধ্যরাত সোয়া ১ টার দিকে র‌্যাব-১৪ একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের সদস্য মোঃ রুবেল মিয়া (৩০), মোঃ শিপন (২৮), আমিনুল ইসলাম (২৫), আব্দুর রশীদ (৩৫), সহ ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, এসময় তাদের কাছ থেকে স্বর্ণ সদৃশ নকল স্বর্ণের বার ১০ টি, স্বর্ণ সদৃশ নকল স্বর্ণের হাতলযুক্ত চামচ ২ টি, স্বর্ণ সদৃশ নকল স্বর্ণের হাতল ছাড়া চামচ ১ টি, পপ্লাল মেটাল পলিশ ১ টি, হাতলসহ এক্স ব্লেড ১ টি, ড্রিল মেশিন ১ টি, সিএনজি অটোরিক্সা ১টি, মোবাইল ৫ টি উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃত আসামীদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ময়মনসিংহ জেলার কোতোয়ালী থানাধীন শম্ভুগঞ্জ এলাকায় অভিযান চালিয়ে সকালে সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য মোঃ মোশাররফ হোসেন (৩২), সাইফুল (৩৫), মোঃ রাব্বিল হাসান (২৫), সহ আরও তিনজনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। গ্রেফতারকৃতরা ঘটনার বিষয়ে প্রাথমিকভাবে স্বীকারোক্তি প্রদান করেছেন। তারা দীর্ঘদিন যাবৎ সাধারণ জনগণের সাথে প্রতারণা করে আসছিল । এই সমস্ত প্রতারক চক্রের সদস্যদের বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলেও জানিয়েছেন র‌্যাবের এই কর্মকর্তা।