ময়মনসিংহে প্রধান শিক্ষককে মারধরের ঘটনায় সেই দফতরি আটক

ফারুক আহমেদ :
শ্রেণিকক্ষ খুলে পরিষ্কার করতে বলায় ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে প্রধান শিক্ষককে পেটালেন দফতরি রকিব খান। এ ঘটনায় শুক্রবার ভোরে তাকে আটক করে পুলিশ।
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুর আলম বলেন, ঘটনা জানার পর অপরাধীকে দ্রæত আটকের নির্দেশ দেয়া হয়। এরপর সেই দফতরিকে আটক করে পুলিশ। সে দফতরি কাম প্রহরী। অস্থায়ী ভিত্তিকে কাজ করতো। তাকে কর্মস্থল থেকে বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যেহেতু ঘটনাটি দিবালোকে হয়েছে, তাই এ বিষয়ে তদন্ত করার প্রয়োজন নেই।
এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুরে ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ের বারইহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নীলুফা খানম স্কুলে ডাকেন দফতরি রাকিবকে। এ সময় তাকে শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করতে বলেন শিক্ষক। এতে রাকিব ক্লাসরুম পরিষ্কার করতে সরাসরি অপারগতা প্রকাশ করেন। বন্ধে কোনোরকম কাজ করতে পারবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন। এক কথা দুই কথা হতে হতে স্কুলের মাঠেই প্রধান শিক্ষক নীলুফাকে মারধর করেন দফতরি। এ সময় রাকিবের ভাই এসেও গালমন্দ করেন নীলুফাকে।
বাংলাদেশ প্রাইমারি অনলাইন শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আহমেদ জানান, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। এমন ঘটনা কখনো কাম্য নয়। আমরা ওই দফতরির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। মহাপরিচালক নিজেই বিষয়টি যেহেতু তদারকি করছেন, যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে আমরা আশাবাদী।
গফরগাঁওয়ের পাগলা থানার ওসি রাশেদুজ্জামান বলেন, দফতরি রকিবকে বারইহাটি থেকে ভোরে আটক করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এখনো এ বিষয়ে কেউ মামলা করেনি। অভিযোগ পেলে মামলা নেয়া হবে।