ময়মনসিংহে জোড়া খুন, ঘাতক গ্রেফতার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ময়মনসিংহ ১৬ জানুয়ারি :
ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রী ও এক সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যার ঘটনায় ঘাতক স্বামী শফিকুল ইসলাম শাহিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নিহতরা হলেন, রুমা আক্তার (৩৮) নাফিয়া আক্তার (১২)। এ ঘটনায় আরও এক মেয়ে আহত হয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে কিশোরগঞ্জের ঘাইটাল বাসষ্ট্র্যান্ড এলাকায় যৌথ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে কোতয়ালী মডেল থানা ও গোয়েন্দা পুলিশের বিশেষ টিম। এরআগে বুধবার (১৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার খাগডহর ইউনিয়নের ফকিরবাড়িতে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে।

কোতুয়ালী মডেল থানার ওসি তদন্ত গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সদর উপজেলার খাগডহর ইউনিয়নের ঘন্টি ফকিরবাড়িতে পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রী ও এক কন্যা সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা করে বাড়ির গৃহকর্তা শফিকুল ইসলাম শাহিন। এ সময় তার বড় কন্যাকেও হত্যার চেষ্টা করা হয়। পরে তার চিৎকারে স্বজনরা এগিয়ে আসলে ঘাতক পালিয়ে যায়। এসময় আহত বড় মেয়ে সাদিয়া আফরিন লাবণ্যকে (২১) উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তিনি আরও জানান, পুলিশ নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মমেক হাসপাতাল পাঠান। তবে কি কারণে হত্যাকান্ড, তা জানা যায়নি। যেকোন বিষয় নিয়ে কলহের জেরে হত্যাকান্ডটি হতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ। এদিকে স্বামী পলাতক থাকায় তাকে আটক করতে মাঠে নামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সদস্যরা। পরে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাকে কিশোরগঞ্জের ঘাইটাল এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় বলেও জানিয়েছেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।