ময়মনসিংহে কুলি শ্রমিকদের মাঝে এসপির খাদ্য বিতরণ

মাসুদ রানা, ময়মনসিংহ ৭ এপ্রিল :
ময়মনসিংহ নগরীর বিভিন্ন অসহায় কর্মহীন কুলি শ্রমিকদের মাঝে এবার খাদ্য বিতরণ করেছেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) আহমার উজ্জামান।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) সকালে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে জেলা পুলিশের উদ্যোগে ১৬২ জন অসহায়, দুঃস্থ্য ও অসুস্থ্য কুলি শ্রমিকদের হাতে এ খাদ্য সহায়তা তুলে দেয়া হয়।

এছাড়াও প্রতিদিন রাতের আধাঁরে নিরবিচ্ছিন্ন ছিন্নমুল বস্তিবাসির ঘরে রান্না করা খাবার প্যাকেট, মোবাইল ম্যাসেঞ্জারে অনাহারে থাকার আকুতি পুরন, এতিমদের বাড়ি গিয়ে খুঁজে খুঁজে বের খাদ্য সামগ্রী বিতরন করা হচ্ছে। পাশাপাশি অসহায় কুলি শ্রমিকদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করে আসছেন ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার।

করোনা ভাইরাস সংক্রমনরোধে সরকারি ছুটি। স্কুল কলেজ মাদ্রাসা কোচিং সবই বন্ধ। নিজ প্রতিষ্ঠান ছেড়ে সবাই চলে গেছেন বর্তমান অবস্থানে। নগরীর লোকজনের আনাগোনা নেই। যানবাহন বন্ধ। চলছে অঘোষিত লকডাউন। সরকারি বেসরকারিভাবে প্রতিটি অঞ্চলে ত্রাণ দেয়া চলছে। ছিন্নমূল, ভাসমান, ঠিকানাহীন কর্মজীবীরা পড়েছে মহাবিপাকে । কুলি শ্রমিকরা কর্মহীন বেকার হয়ে পড়েছে। এ পরিস্থিতিতে এগিয়ে আসেন ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আহমার উজ্জামান। যিনি আইন শৃংখলা বাহিনী নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি প্রতিদিন ধারাবাহিকভাবে মানবিকতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছেন।
এ পুলিশ সুপার বস্তিবাসী, অসহায়, অস্বচ্ছল, দিন এনে দিন খাওয়া, কর্মহীন, বেদে পরিবারদের খুঁজে খুঁজে ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা দিয়ে আসছেন।

অন্যদিকে ময়মনসিংহ বিভাগীয় নগরীতে অঘোষিত লকডাউন থাকায় ফুটপাতে থাকা ভাসমানদের আহার যুগিয়ে চলছেন তিনি। রান্না করা খাবার প্যাকেট নিয়ে নগরীর বিভিন্ন স্থান ঘুরে ঘুরে ভাসমান অনহারী মানুষের মুখে নিয়মিত আহার তুলে দিচ্ছেন। ইতিমধ্যে পুলিশ সুপার আহমার উজ্জামানের মানবাধিকতার খবর জেলার সকলস্তরে ব্যাপকভাবে সারা ফেলেছে। পুলিশ সুপারের ফেইসবুকে আবেদন করে, ৬ সদস্যের পরিবার নিয়ে না খেয়ে থাকা এবং স্বামীহারা নারীর পরিবার মানবেতর জীবন যাপন করছে। এমন খবরে তাৎণিক জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি মো. শাহ কামাল আকন্দের মাধ্যমে অসহায় পরিবারদের খুঁজে খুঁজে ১০ দিনের খাবার তাদের তুলে দেয়ায়া হয়।

এদিকে নগরীর দিঘারকান্দা এলাকায় বন্ধ থাকা আল মানার এতিমখানার ৪৮ জন এতিম শিক্ষারর্থীর তালিকা নিয়ে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি শাহ কামাল আকন্দের নেতৃত্বে ডিবি পুলিশ ১০দিনের খাদ্য সহায়তা এতিমদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েছেন বলে জানা গেছে। ডিবি পুলিশের টিম বাড়ি বাড়ি গিয়ে এতিমদের নাম ধরে ডেকে ডেকে আহবান করছেন, আমরা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আহমার উজ্জামানের পক্ষ থেকে আপনাদের জন্য খাবার নিয়ে এসেছি।

আহ মঙ্গলবার সকালে ১৬২ জন অসহায়, অসুস্থ কুলি শ্রমিকদের মাঝে খাদ্য সহায়তা বিতরণ করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আহমার উজ্জামান। এ সময় সহায়তা নিতে আসা অনেকের সাথে পুলিশ সুপার কথা বলে জানতে পারেন তারা কোথাও থেকে এখন পর্যম্ত সহায়তা পাননি। পুলিশ সুপার তাদের কথা শুনে আবেগ আপ্লুত হয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবার জন্য খাবার নিশ্চিত করতে নির্দেশ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ পালনে পুলিশ সার্বক্ষনিক মাঠে কাজ করছে। পুলিশ আপনাদের পাশে আছে এবং থাকবে। একজন লোকও না খেয়ে থাকবেনা। আইন শৃংখলা বাহিনীর পাশপাশি অর্ধাহারে অনাহারে থাকা লোকজনের খাবার নিশ্চিত করতে পুলিশের পক্ষ থেকে সকল ধরণের সহযোগীতা অব্যাহত থাকবে। আপনারা সরকারের আদেশ মেনে চলুন। নিজেরা ঘরে অবস্থান করুন। খাবার সমস্যা হলে জেলা প্রশাসনের সহায়তায় পুলিশ আপনাদের ঘরে খাবার পৌছে দিবে।