ময়মনসিংহে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে যুবক নিহতের ঘটনায় ৮ জনের নামে মামলা

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি :
ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলায় গ্রামের আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুই পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষে হুমায়ুন কবির (৩২) নামে একজন নিহতের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।শুক্রবার রাতে নিহত যুবক হুমায়ুন কবিরের মা রাহেনা খাতুন বাদী হয়ে প্রতিপক্ষের ৮ জনকে আসামি করে গফরগাঁও থানায় এ মামলা দায়ের করেন।পুলিশ আলম ওরফে আলিম নামে চিকিৎসারত একজনকে গ্রেপ্তার করেছে ।
থানা ও দায়েরকৃত মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ধোপাঘাট গ্রামের মৃত আব্দুল মতিন ও পাশের রাওনা গ্রামের মৃত শহর আলী মন্ডলের পরিবারের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ১০-১২ বছর আগে বিরোধের সূত্রপাত হয়। এর জের ধরে ইতোপূর্বে দুই পরিবারের মধ্যে বহুবার ঝগড়া-মারামারির ঘটনা ঘটে। দুই বছর পূর্বে একটি সংঘর্ষের ঘটনায় মৃত আব্দুল মতিনের ছেলেরা মৃত শহর আলী মন্ডলের ছেলেদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। সে মামলায় শহর আলী মন্ডলের ছেলেরা গ্রেপ্তার হয়ে জেল হাজতে যান। পরে জামিন পেয়ে বিদেশে চলে যান তারা। সম্প্রতি তারা দেশে ফিরে এলে দুই পরিবারের বিরোধ নতুন করে শুরু হয়।
বুধবার বিকাল থেকে ফের দুই পরিবারের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়।এ সময় মোটরসাইকেল পোড়ানোর ঘটনা ঘটে। এর জের ধরে বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ধোপাঘাট বাজারে দুই পরিবারের লোকজনের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এতে রামদার আঘাতে মৃত আব্দুল মতিনের ছেলে হুমায়ুন কবির, জজ মিয়া ও শহর আলী মন্ডলের ছেলে আশরাফুল আলম ওরফে আলিম গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় হুমায়ুন কবির মারা যান।
এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে নিহত হুমায়ুন কবিরের মা রাহেনা খাতুন বাদী হয়ে শুক্রবার রাতে প্রতিপক্ষ শহর আলী মন্ডলের ছেলে নয়ন, শরিফুল, আশরাফুল আলম ওরফে আলিম, সাইফুল ইসলাম, মেয়ে ফাতেমা বেগমসহ ৮ জনকে আসামি করে গফরগাঁও থানায় মামলা দায়ের করেন।
গফরগাঁও থানার ওসি অনুকুল সরকার বলেন, এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।