মিহির চক্রবর্তী নড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী

রুপক চক্রবর্তী শরীয়তপুর :
আগামী ২৯শে নভেম্বর শুক্রবার বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন-২০১৯ অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলন কে ঘিরে ইতিমধ্যে নড়িয়ায় নেতা কর্মী ও জনসাধারণের মাঝে এক উৎসব মুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। বিভিন্ন নেতা কর্মী ও পদপ্রত্যাশীদের ব্যানার, ফেস্টুনে মুখরিত নড়িয়া শহর। সেই সাথে সাথে কে কোন পদে নেতৃত্ব আসবে সে আলোচনা ও রয়েছে নেতা কর্মী ও সাধারণ মানুষের হৃদয়ে। আসন্ন নড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় রয়েছেন এবং ইতিমধ্যে সাধারণ সম্পাদক পদের ফরম জমা দিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ নড়িয়া উপজেলা শাখার প্রচার সম্পাদক, সম্মেলন প্রচার উপ-কমিটির আহবায়ক, এক সময়ের তুখোড় ছাত্রনেতা জননেতা মিহির চক্রবর্তী। ২৬শে নভেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে নড়িয়া উপজেলা ও উপজেলার অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ সহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা ও কর্মী দের সাথে নিয়ে সাধারণ সম্পাদক পদের ফরম সংগ্রহ করেন সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী মিহির চক্রবর্তী।
মিহির চক্রবর্তী ছাত্র জীবন থেকে রাজনীতির সাথে জড়িত। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দিয়েই তার রাজনৈতিক হাতে খড়ি। ছাত্র রাজনীতি কালে তিনি প্রথমে নড়িয়া উপজেলার কেদারপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরপরে নড়িয়া উপজেলা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক, পরে বিএনপির আমলে বাংলাদেশে আওয়ামীলীগের দুঃসময়ে সম্মেলনের মাধ্যমে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ শরীয়তপুর জেলা শাখার সহ সভাপতি নির্বাচিত হয়। তিনি জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পরে দলের একনিষ্ঠ কর্মী হয়ে রাজপথে বিভিন্ন মিছিল মিটিং এ অগ্রনী ভূমিকা পালন করেন। ছাত্র রাজনীতির বয়স অতিবাহিত হওয়ার পরে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ নড়িয়া উপজেলা শাখার কার্যনির্বাহী সদস্য নির্বাচিত হন। বর্তমানে তিনি নড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বরত আছেন, তিনি নড়িয়া উপজেলা শেখ রাসেল স্মৃতি সাংসদের সভাপতি, মিহির চক্রবর্তী বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ শরীয়তপুর জেলা শাখার যুগ্ম সাধারন সম্পাদক পদে রয়েছেন। এছাড়া ও তিনি শরীয়তপুর জেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক ও ধর্মীয় সংগঠনের সাথে জড়িত ও বিভিন্ন পদে দায়িত্বরত আছেন।

মিহির চক্রবর্তী বলেন, আমি কৈশোর কাল থেকে রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের দ্বারাই আমার রাজনীতি শুরু। ছাত্র রাজনীতি থেকে শুরু করে আজ ও পর্যন্ত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নীতি ও আদর্শ কে বুকে ধারন করে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত আছি। আওয়ামীলীগের রাজনীতি করবার কারনে আমি জীবনে বারবার বিএনপি জামাতের হামলা, মামলার স্বীকার হয়েছি। বহু বার মৃত্যুর সম্মুখীন হয়েছি তবে কখনো প্রানের সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে পিছ পা হয়নি। আর যতদিন বাঁচবো আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথেই নিজেকে সম্পৃক্ত রাখবো। আমি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একজন একনিষ্ঠ কর্মী এবং বার বার নির্যাতিত কর্মী। আমি আশাবাদী আসন্ন নড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে আমাদের আস্থা ও ভরসার ঠিকানা, বাংলাদেশ সরকারের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় উপমন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের অন্যতম সফল সাংগঠনিক সম্পাদক, আমাদের শরীয়তপুর ২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জননেতা এ কে এম এনামুল হক শামীম ভাই আমাকে নড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দিবেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিলো বাংলাদেশ কে একটি ক্ষুধা মুক্ত দারিদ্র্য মুক্ত সোনার বাংলা গঠন করবে তারই ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা এগিয়ে চলছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও
আমাদের সাংসদ এ কে এম এনামুল হক শামীম ভাইয়ের হাত কে শক্তিশালী করবার জন্য এবং নড়িয়া উপজেলা আওয়ামীলীগকে সুসংগঠিত করবার জন্য আমি সর্বদা আওয়ামীলীগের সাথে ছিলাম আছি এবং থাকবো।
মিহির চক্রবর্তী শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার কেদারপুর ইউনিয়নের ব্রাক্ষ্মন পরিবারের সন্তান। তাহার পিতার নাম মৃত নারায়ন চক্রবর্তী।