মা হত্যা র দায়ে ছেলের ফাঁসির আদেশ

38
মা হত্যা

মাসুদ রানা, ময়মনসিংহ ১১ অক্টোবর: মা হত্যা –ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার জামিরদিয়া ডুবালিয়াপাড়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মা মরিয়ম বেগমকে (৭০) দা দিয়ে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যার দায়ে সন্তানের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত।

দন্ডপ্রাপ্ত আসামীর নাম গোলাম মোস্তফা। এছাড়া আরো ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সোমবার (১১ অক্টোবর) দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক হেলাল উদ্দিন এ মামলার রায় ঘোষনা করেন।

এতে রাস্ট্র পক্ষের পিপি ছিলেন এড. কবির উদ্দিন ভূইয়া এবং বাদি পক্ষের আইনজিবী ছিলেন এড. আজিজুল হক

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৮ সালের ১২ ডিসেম্বর সকাল ১০ টায় উপজেলার জামিরদিয়া ডুবালিয়াপাড়া গ্রামে জমি বিরোধের জের ধরে ঘুমন্ত মা মরিয়ম বেগমকে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যা করে তার ছেলে গোলাম মোস্তফা। হত্যার পর পালিয়ে যাওয়ার সময় তাকে আটক করে এলাকাবাসী।

এ ঘটনায় বড় ছেলে শাহ জালাল বাদি হয়ে ভালুকা মডেল থানা ১৩ ডিসেম্বর রাতে ৫ জন আসামি করে মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ দিন মামলা শুনানী শেষে ৪ জনকে খালাস দেয়া হয় এবং গোলাম মোস্তফাকে দোষী সাব্যস্ত করে এ হত্যা মামলায় ফাঁসির রায় ঘোষনা করেন আদালতের বিচারক। তবে ৬০ দিনের মধ্যে উচ্চ আদালতে এ রায়ের আপিল করতে পারবেন আসামি পক্ষের স্বজনরা।

এদিকে রায় ঘোষনার পর বাদি পক্ষের আইনজীবী আনন্দ প্রকাশ করেন।

মাসুদ রানা, ময়মনসিংহ ১১ অক্টোবর: মা হত্যা -ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার জামিরদিয়া ডুবালিয়াপাড়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মা মরিয়ম বেগমকে (৭০) দা দিয়ে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যার দায়ে সন্তানের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত।

দন্ডপ্রাপ্ত আসামীর নাম গোলাম মোস্তফা। এছাড়া আরো ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সোমবার (১১ অক্টোবর) দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক হেলাল উদ্দিন এ মামলার রায় ঘোষনা করেন।

এতে রাস্ট্র পক্ষের পিপি ছিলেন এড. কবির উদ্দিন ভূইয়া এবং বাদি পক্ষের আইনজিবী ছিলেন এড. আজিজুল হক

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৮ সালের ১২ ডিসেম্বর সকাল ১০ টায় উপজেলার জামিরদিয়া ডুবালিয়াপাড়া গ্রামে জমি বিরোধের জের ধরে ঘুমন্ত মা মরিয়ম বেগমকে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যা করে তার ছেলে গোলাম মোস্তফা। হত্যার পর পালিয়ে যাওয়ার সময় তাকে আটক করে এলাকাবাসী।

এ ঘটনায় বড় ছেলে শাহ জালাল বাদি হয়ে ভালুকা মডেল থানা ১৩ ডিসেম্বর রাতে ৫ জন আসামি করে মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ দিন মামলা শুনানী শেষে ৪ জনকে খালাস দেয়া হয় এবং গোলাম মোস্তফাকে দোষী সাব্যস্ত করে এ হত্যা মামলায় ফাঁসির রায় ঘোষনা করেন আদালতের বিচারক। তবে ৬০ দিনের মধ্যে উচ্চ আদালতে এ রায়ের আপিল করতে পারবেন আসামি পক্ষের স্বজনরা।

এদিকে রায় ঘোষনার পর বাদি পক্ষের আইনজীবী আনন্দ প্রকাশ করেন।