মাশরাফির প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে নায়ক অপু!

স্পোর্টস ডেস্ক : ব্যাটারদের ব্যর্থতায় স্কোরবোর্ডে ছিল না পর্যাপ্ত রান। তারপরও অভিজ্ঞ বোলিং লাইন আপ নিয়ে লড়াইয়ের সুযোগ ছিল মিনিস্টার ঢাকার। কিন্তু সিলেট সানরাইজার্সের ব্যাটাররা তা হতে দিলেন না। ৮ উইকেটে জিতে চলতি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) প্রথম জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল মোসাদ্দেক হোসেনের দল।

ম্যাচ জিততে সিলেটকে ১০১ রানের লক্ষ্য দেয় ঢাকা। ছোট ও সহজ লক্ষ্যে তাই চাপটাও তেমন ছিল না। তারপরও বড় শটস খেলতে গিয়ে পাওয়ার প্লে’তেই রুবেল হোসেনের তালুবন্দি হয়ে সাজঘরে লেন্ডেনল সিমন্স। ২১ বলে ১৬ রান করা এই ব্যাটারকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান ৪০২ দিন পর প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে মাঠে নামা মাশরাফি বিন মর্তুজা।

সঙ্গী হারালেও মোহাম্মদ মিঠুনকে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন এনামুল হক বিজয়। তাদের ব্যাটে দলীয় ৫০ পার করে সিলেট। তবে ৫৯ রানে মিঠুনকে বিদায় করেন হাসান মুরাদ। এরপর ক্রিজে নেমে বিজয়ের সঙ্গে জুটি গড়েন কলিন ইনগ্রাম।

এই জুটিতেই জয়ের খুব কাছে চলে যায় সিলেট। তবে জয় থেকে ২ রান দূরে থাকাকালীন ব্যক্তিগত ৪৫ রানে মাশরাফির বলে তামিমের তালুবন্দি হন বিজয়। ক্রিজে নেমে রবি বোপারা ১ বল খেলে কোন রান নেননি। তবে জয়সূচক রানটি আসে ইনগ্রামের ব্যাট থেকে। ১৯ বলে ২১ রান করেন এই প্রোটিয়া। মাশরাফি নেন ২ উইকেট।
এর আগে প্রথমে ব্যাট করে ব্যাটারদের আসা-যাওয়ার মিছিলে লড়াই করতে পেরেছেন শুধু মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও শুভাগত হোম। ৩৩ রানে ঢাকার অধিনায়ক ফেরেন নাজমুল অপুর শিকার হয়ে। ২১ রান করা শুভাগতকেও লেগ বিফরের ফাঁদে ফেলেন এই স্পিনার।

এই দুজন ছাড়া রুবেল হোসেন করেছেন ১২ রান। এছাড়া ৩০ বলে ১৫ রান আসে নাঈম শেখের ব্যাট থেকে। নাজমুল অপু ১৮ রানে নেন ৪ উইকেট, ২২ রানে ৩ উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
মিনিস্টার ঢাকা- ১৮.৪ ওভারে ১০০ অল আউট (মাহমুদউল্লাহ ৩৩, শুভাগত ২১) (অপু ৪/১৮)
সিলেট সানরাইজার্স- ১৭ ওভারে ২/১০১ (বিজয় ৪৫, ইনগ্রাম ২১) (মাশরাফি ২/২১)