ময়মনসিংহে ২৫ লাখ টাকার জাল নোট উদ্ধার, দুই নাতিসহ নানা গ্রেফতার

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ২৫ লাখ টাকার জাল নোট দুই নাতিসহ ও নানাকে আটক করেছে পুলিশ।
জানা যায়, শনিবার সকাল ১০টার দিকে পৌর শহরের চাল মহাল মসজিদ মার্কেটের লতিফ মিয়ার মনোহারী দোকান থেকে দুই শিশু গুড় ও সাবান কিনে এক হাজার টাকার নোট দেয়। ব্যাবসায়ীর নোটটি দেখে সন্দেহ হলে পাশের দোকানের সাইফুলকে নোটটি দেখালে তিনি জাল টাকা বলে ধারনা করেন। পরে জনতা দুই শিশুর দেহ তল্লাশি করে ৯০ হাজার টাকা পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।
স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানায় পুলিশ টাকাগুলো রেখে শিশুদের ছেড়ে দেয়। জাল টাকাসহ শিশু আটকের ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক তুলপাড়ের সৃষ্টি হয়। এ বিষয়ে ওসিকে জিজ্ঞাসা করা হলে জানান, এসআই আশরাফুলসহ পুলিশ নিয়ে তিনি রাজিবপুর ইউনিয়নের বৃদেবস্থান গ্রামে রয়েছেন।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার রাজিবপুর ইউনিয়নের বৃদেবস্থান গ্রামের আবুল কাশেমের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ আরো ২৪টি ১হাজার টাকা নোটের বান্ডেল, জাল টাকা তৈরির ২০রিম কাগজ, ২বোতল কেমিক্যাল, ২রোল টাকা তৈরির সুতা উদ্ধার করে।
এসময় বৃদেবস্থান গ্রামের মৃত আক্কাস আলির পুত্র আবুল কাশেম (৭০) ও তার দু কণ্যার নাতি গৌরীপুর উপজেলার নাউভাঙ্গা গ্রামের বাহাদুরের পুত্র পাপ্পু ওরফে সম্রাট (৯) ও কুমিল্লা জেলার আবু কাউসারের পুত্র হাসান ওরফে জয় (১১)’কে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। আটককৃত দু’শিশু তার নানার বাড়িতেই বসবাস করে বলে আটককৃত নানা জানায়।
পুলিশ জানায়, আটককৃত কাশেমের অপর এক মেয়ের জামাই নেত্রকোণা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার ডুমুরিয়া গ্রামের সেলিম জাল টাকা তৈরির মূল হোতা। ইতোপুর্বে সেলিম একাধিকবার জাল টাকাসহ আটক হয়।
খবর পেয়ে গৌরীপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন মিয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাছিনুর রহমান জানান, দুই শিশু সহ নানাকে আটক করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন, পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।