ময়মনসিংহে রায়হান হত্যা মামলায় বাবা-ছেলের যাবজ্জীবন

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছার জমির সীমানা নিয়ে বিরোধে আবু রায়হান হত্যা মামলায় পিতা ও পুত্রকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও ৩০ হাজার টাকা জরিমানা ধার্য করেন, অনাদায়ে আরো তিন মাসের দন্ডের আদেশ দেয় আদালত।
দন্ডপ্রাপ্তরা হলো মুক্তাগাছার কাসেমপুরের হরিপুরের কেরামত আলীর ছেলে দুলাল মিয়া (৫৮) ও দুলাল মিয়ার ছেলে তানভীর আহমেদ ফরহাদ(৩০)।

মঙ্গলবার দুপুরে ময়মনসিংহ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ৪র্থ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ রাশেদ তালুকদার এ আদেশ দেন। রায় ঘোষণার সময় আদালতে আসামী দুলাল মিয়া উপস্থিত থাকলেও অপর আসামী তানভীর আহমেদ ফরহাদ পলাতক রয়েছে। মামলাটিতে ১৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ ও শুনানী শেষে এ আদেশ দেন আদালত।
মামলার বিবরণে জানা যায়, মুক্তাগাছার কাসেমপুর ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের দুলাল মিয়া ও ফয়জুর রহমানের সাথে জমির সীমানা নিয়ে বিরোধ ছিল। ২০১৩ সালের ২৪ জানুয়ারি বিকেলে জমির আইল নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে দন্ডপ্রাপ্তরা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে ফয়জুর রহমানকে। ফয়জুর রহমানের ডাক চিৎকারে পরিবারের লোকজনসহ স্থানীয়রা ছুটে যায়। এ সময়ে ফয়জুর রহমানের ছেলে আবু রায়হানকে দা দিয়ে আঘাত করে প্রতিপক্ষরা।

রক্তাক্ত অবস্থায় রায়হানকে উদ্ধার করে প্রথমে মুক্তাগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে, পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা নেয়া পথে সে মারা যায়। পরদিন নিহতের বাবা ফয়জুর রহমান বাদী হয়ে চারজনের নামে মুক্তাগাছা থানায় মামলা করলে পুলিশ তদন্তে দুইজনের সম্পৃক্ততা পায়।