ভূমিকম্পের আশঙ্কায় সিলেটে ২৫ মার্কেট-ভবন ১০ দিন বন্ধ

ঘন ঘন ভূমিকম্পের কারণে সিলেট নগরের ২৫টি ঝুঁকিপূর্ণ ভবন ও মার্কেট আগামী ১০ দিন বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন। এর মধ্যে ৬টি মার্কেট পরিদর্শনে গিয়ে তা বন্ধ করে দিয়েছেন খোদ মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

রোববার (৩০ মে) বিকেলে মেয়র নগরের সিটি সুপার মার্কেট, মধুবন সুপার মার্কেট, মিতালী ম্যানশন, সমবায় ভবন, রাজা ম্যানশন, সুরমা মার্কেট এবং জেমস গ্যালারি ভবনে গিয়ে সেগুলো বন্ধ করে দেন। এ সময় তার সঙ্গে সিসিকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, সিলেট নগরে ঘন ঘন ভূমিকম্পের কারণে বড় ভূমিকম্পের আশঙ্কায় ক্ষয়ক্ষতি রোধে আগামী ১০ দিন ঝুঁকিপূর্ণ ২৫টি মার্কেট ও ভবন বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। এর মধ্যে আজ পরিদর্শনে যাওয়া মার্কেটগুলোও রয়েছে। এ সব মার্কেট আগে থেকে ঝুঁকিপূর্ণ তালিকায় রয়েছে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান জানান, ২০১৯ সালে নগরীর ২৫ বহুতল ভবনকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। ভবনগুলো হচ্ছে- জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের উত্তর পাশের কালেক্টরেট ভবন-৩, জেলরোডস্থ সমবায় ব্যাংক ভবন, একই এলাকায় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার সাবেক কার্যালয় ভবন, সুরমা মার্কেট, বন্দরবাজারস্থ সিটি সুপার মার্কেট, জিন্দাবাজারের মিতালী ম্যানশন, দরগাগেইটের হোটেল আজমীর, বন্দরবাজারের মধুবন সুপার মার্কেট, টিলাগড় কালাশীলের মান্নান ভিউ, নগরের শেখঘাট এলাকায় শুভেচ্ছা-২২৬ নম্বর ভবন, যতরপুরের নবপুষ্প ২৬/এ বাসা, চৌকিদেখির ৫১/৩ সরকার ভবন, জিন্দাবাজারের রাজাম্যানশন, পুরানলেনের ৪/এ কিবরিয়া লজ, খারপাড়ার মিতালী-৭৪, মির্জাজাঙ্গাল মেঘনা এ-৩৯/২, পাঠানটুলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর বাগবাড়ির একতা ৩৭৭/৭ ওয়ারিছ মঞ্জিল, একই এলাকার একতা ৩৭৭/৮ হোসেইন মঞ্জিল, একতা-৩৭৭/৯ শাহনাজ রিয়াজ ভিলা, বনকলাপাড়া নূরানি-১৪, ধোপাদিঘীর দক্ষিণ পাড়ের পৌরবিপণী মার্কেট ও ধোপাদিঘীরপাড়ের পৌর শপিং সেন্টার। এর মধ্যে পুরানলেনের ৪/এ কিবরিয়া লজটি শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হতে বিশেষজ্ঞ নিয়োগ দিয়ে মেরামত করা হয়েছে।

শনিবার (২৯ মে) থেকে রোববার (৩০ মে) সকাল পর্যন্ত সিলেটে কয়েক দফা ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে। এ ভূমিকম্পে নগরের পাঠানটুলায় একটি ছয়তলা ভবন হেলে পড়েছে। দফায় দফায় ছোট ভূমিকম্পের কারণে বড় ভূমিকম্পের আশঙ্কায় বিশেষ পর্যবেক্ষণ ও প্রস্তুতি নিয়েছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন। চালু রয়েছে কন্ট্রোল রুম এবং হট লাইনও।

ছোট ছোট ভূমিকম্প বড় ভূমিকম্পের বার্তা বহন করে। তাই আগামী ৩-৪ দিন সিলেটের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বলে জানিয়েছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পুর ও পরিবেশ কৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. জহির বিন আলম। তিনি বলেন, কয়েকদিন সবাইকে সতর্ক থাকা উচিত। এর মধ্যে বড় ভূমিকম্প হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।