ভালুকায় শিক্ষককে মারধর, উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট ময়মনসিংহ ২০ জানুয়ারি:
ময়মনসিংহের ভালুকায় কলেজ শিক্ষককে মারধরের অভিযোগে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবুল কালাম আজাদসহ ১১ জনকে আসামি করে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ ইমাম হাসানের আদালতে মো. হুমায়ুন কবীর (৩০) বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

হুমায়ুন কবীর ময়মনসিংহ মহিলা ডিগ্রি কলেজের খণ্ডকালীন প্রভাষক ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য।

বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে ভালুকা থানা পুলিশকে নথিভুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন বলে মামলার বাদী আইনজীবী শাহজাহান কবীর সাজু জানিয়েছেন।

মামলার বাকি আসামিরা হলেন- ইমরান আলী (৩৩), নাজমুল (২৫), মানিক (২৮) ও আবির (২৫)। এছাড়া আরও ৫/৬ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে এই মামলায়।

মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে ভালুকা উপজেলার মেদুয়ারি এলাকার মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক তালুকদারকে একটি তুচ্ছ ঘটনায় লাঞ্ছিত করেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে ফজলুল হক তার নিজের ফেইসবুক আইডিতে একটি পোস্ট করেন। পরে হুমায়ুন কবীর ওই পোস্টটি তার ফেইসবুকে শেয়ার করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আসামিরা গত ২৩ ডিসেম্বর রাতে উপজেলার সিডস্টোর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় হুমায়ুন কবীরকে বেধরক মারধর করেন।

ভালুকা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমি এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নই। আমাকে অন্যায়ভাবে মামলায় জড়ানো হয়েছে। আমিও পাল্টা মামলা করব।