ব্ল্যাক ফাঙ্গাসকে মহামারি রোগ ঘোষণা দিলো দিল্লি

ভারতে বেড়েই চলেছে করোনার প্রকোপ। প্রতিদিনই মৃত্যু হচ্ছে হাজারো মানুষের। শনাক্তের দিক থেকেও পিছিয়ে নেই দেশটি। করোনার এমন ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে এবার ভারতে নতুন আতঙ্ক ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের। বৃহস্পতিবার দিল্লিতে এক দিনে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে (কালো ছত্রাক) সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৫৩ জন।
এক সাথে এতো মানুষের ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের আক্রান্তের খবরের পর রোগটিতে মহামারি রোগ ঘোষণা করেছেন দিল্লির উপ–রাজ্যপাল অনিল বাইজাল। দেশটির মহামারি রোগ আইন-১৮৯৭ এর আওতায় কিছু বিধিবিধান জারি করেন তিনি।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণের বেড়ে যাওয়ায় দিল্লির উপ-রাজ্যপাল অনিল বাইজাল মহামারি রোগ আইন–১৮৯৭ এর আওতায় কিছু বিধিবিধান জারি করেছেন। এই রোগকে মহামারি রোগ হিসেবে ঘোষণা দেন তিনি।
এর আগে বুধবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল জানিয়েছিলেন, দিল্লিতে বর্তমানে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা ৬২০ জন। মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়ালের ঘোষণা অনুযায়ী, গতকাল নতুন করে শনাক্ত ১৫৩ জন যোগ হলে মোট সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াল ৭৭৩ জনে।
স্থানীয় আরেক গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের খবরে বলা হয়েছে, উপ–রাজ্যপালের জারি করা বিধানগুলো অনুযায়ী, দিল্লির সরকারি–বেসরকারি সব স্বাস্থ্য সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ব্ল্যাক ফাঙ্গাস শনাক্ত ও চিকিৎসার জন্য রাজ্য সরকার, কেন্দ্রীয় সরকার ও ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চের জারি করা নির্দেশিকা মেনে চলবে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুমতি ছাড়া কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান ব্ল্যাক ফাঙ্গাস সংক্রমণ ব্যবস্থাপনার কোনো তথ্য শেয়ার করতে পারবে না।
কেউ যদি আইনের বিধানের ভঙ্গ করে, তাহলে দণ্ডবিধির আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই বিধানগুলো গতকাল থেকে আগামী এক বছরের জন্য কার্যকর থাকবে।
এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, সরকারি তথ্যমতে, ভারতে গতকাল পর্যন্ত ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে সংক্রমিত ১১ হাজার ৭১৭ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। গুজরাট রাজ্যে সবচেয়ে বেশি মানুষ এই ছত্রাকে সংক্রমিত হয়েছেন। রাজ্যটিতে এই সংখ্যা হচ্ছে, ২ হাজার ৮৫৯ জন। এর পরে মহারাষ্ট্রে সংক্রমিত ২ হাজার ৭৭০ জন। আর অন্ধ্র প্রদেশে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে সংক্রিমত ৭৬৮ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে।