বিড়াল অর্ডার করে ফরাসি দম্পতি হাতে পেলেন বাঘ!

পোষ্যদের নিয়ে একটি অনলাইন বিজ্ঞাপন দেখে শখ হয়েছিল সাভানা বিড়াল পোষার। আফ্রিকার বাসিন্দা, সার্ভাল প্রজাতির বন্য এবং গৃহপালিত বিড়ালের সংমিশ্রণ এই সাভানা বিড়াল। এদের পা সাধারণত লম্বা হয়, কান বড়, শরীর ছিপছিপে, গায়ে কমলা-খয়েরি রঙ মেশানো লোমের উপর কালো বিন্দু, অনেকটা চিতার মতো।

সেই মতো ৬০০০ ইউরো খরচ করে অনলাইনে এই বিশেষ প্রজাতির বিড়ালছানা কেনার জন্য অর্ডারও দিয়েছিলেন ফ্রান্সের উত্তরপশ্চিমাংশের বন্দর অঞ্চল নর্ম্যান্ডির লা হার্ভে শহরের বাসিন্দা এক ফরাসি দম্পতি। কিন্তু কেনার এক সপ্তাহ পর তারা বুঝতে পারেন, সেটি আসলে তিন মাস বয়স্ক একটি সুমাত্রার বাঘের ছানা।

এরপরই ওই দম্পতি পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন ওই কোম্পানির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ২০১৮ সালে ঘটেছিল। তারপর দুইবছর ধরে তদন্ত চালানোর পর অভিযোগকারী দম্পতিসহ মোট ৯ জনকে পুলিশ গ্রেফতার করলে পর পুরো ঘটনাটি সামনে আসে। ওই দম্পতিকে গ্রেফতারের কারণ হিসেবে পুলিশ জানায়, সংরক্ষিত প্রজাতির পশু পাচারের অভিযোগেই তাদের গ্রেফতার করা হয়।

পরে অবশ্য ওই দম্পতিকে ছেড়ে দেওয়া হয়। বাকিদের পশু পাচার এবং সংগঠিত অপরাধে অভিযুক্ত করা হয়েছে। বাঘের ছানাটিকে ফ্রান্সের বায়োডাইভার্সিটি অফিসে পাঠিয়ে দিয়েছিল পুলিশ। ছানাটি সুস্থই আছে। পরে ছানাটিকে সংরক্ষিত জায়গায় স্থানান্তরিত করা হয়।