বাকপ্রতিবন্ধী ৭ বছরের নাতনীকে ধর্ষণ, কারাগারে ধর্ষক

ময়মনসিংহের ফুলপুরে বাকপ্রতিবন্ধী ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণের মামলায় মো. সদর আলীকে (৫৫) কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।
আসামী সদর আলী ফুলপুর উপজেলার মৃত ইন্তাজ আলীর ছেলে। ওই শিশু সম্পর্কে বৃদ্ধ সদর আলীর দুঃসম্পর্কের নাতনী হয়।
রোববার (২৭ নভেম্বর) বিকালে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক একেএম রওশন জাহান তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
এর আগে (২৬ নভেম্বর) দ্বিবাগত রাতে নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ময়মনসিংহ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের পরিদর্শক ঝুঁটন কুমার বর্মন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ফুলপুর থানা পুলিশ আসামী সদর আলীকে আদালতে পাঠাল বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
ফুলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ঘটনার দিন গত ১৯ অক্টোবর সকাল ১১ টার দিকে বসত বাড়ির পাশে খেলাধুলা করছিলেন ওই বাকপ্রতিবন্ধী শিশু। এই সময় বৃদ্ধ সদর আলী কলা দেয়ার প্রলোভনে তার বসতঘরে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।
ধর্ষণের পর ঘর থেকে বের করে দিলে ওই শিশু কান্না করতে করতে তার মাকে বলেন। পরে তার মা রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পেরে ফুলপুর উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

সেখানে বেশ কিছুদিন চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে ফিরে আসেন ওই শিশু। বাড়িতে ফিরে স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সহায়তায় শনিবার (২৬ নভেম্বর) ওই শিশুর মা বাদী হয়ে সদর আলীকে আসামী করে ফুলপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে ওই দিনই রাতেই সদর আলীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।