বাংলাদেশের ইমেজ বহির্বিশ্বে তুলে ধরতে বিদেশী সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বাংলাদেশের বর্তমান ইমেজ বহির্বিশ্বে তুলে ধরতে বিদেশী সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ‘তাদের সঙ্গে আজ অনেক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তারা নানা প্রশ্ন করেছেন। সে প্রশ্নের উত্তর আমরা দিয়ে বলেছি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ অদম্য গতিতে বাংলাদেশ এগিয়ে চলছে। আমরা তাদের অনুরোধ জানিয়েছি বর্তমানে বাংলাদেশের ইমেজকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরার জন্য।’
তথ্যমন্ত্রী আজ রোববার সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় এই আহবান জানান। সভায় তথ্য সচিব আব্দুল মালেকসহ জার্মানি, ব্রাজিল, চেক রিপাবলিক, ইন্দোনেশিয়া, নাইজেরিয়া, নেপাল, চীন, ভারত, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইনস, পর্তুগাল, পোল্যান্ড, আলজেরিয়া, মালদ্বীপ, কোরিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, তুরস্ক, যুক্তরাজ্য, প্রভৃতি দেশ থেকে আগত ৪০জন সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।
হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ আজ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে, মুক্তিযোদ্ধাদের স্বপ্ন পূরণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের অদম্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। ফলে বাংলাদেশ আজ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হচ্ছে। তিনি বলেন, সামাজিক উন্নয়ন সূচক মানবতা উন্নয়ন সূচকসহ সব সূচক পাকিস্তানসহ আশপাশের অনেক দেশকে অতিক্রম করেছে। গত সাড়ে ১০ বছরে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সূচক সব দেশের ওপরে।
বিশ্ব অর্থনীতিতে বাংলাদেশের মানুষের অবদান তুলে ধরার আহ্বান জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এক কোটি ২০ লাখের বেশি মানুষ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে আছে। তারা শুধু বাংলাদেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখছেন না, বিশ্ব অর্থনীতিতেও তাদের অবদান রয়েছে। তাদেরকে তা বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে বলেছি। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যে সম্ভাবনা রয়েছে তা দিয়ে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশে রূপান্তরিত হওয়ার লক্ষ্যে পৌঁছাতে সক্ষম- সেটিও উপস্থাপনের জন্য তাদের বলা হয়েছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এমন এক দেশ যেখানে পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার অবস্থিত, এটা তাদের অবহিত করেছি। একইসঙ্গে পৃথবীর অন্যতম ম্যানগ্রোভ বন যেখানে রয়েল বেঙ্গল টাইগার রয়েছে সে বিষয়েও তাদের জানানো হয়েছে।
অবৈধ ডিটিএইচের (ডিরেক্ট টু হোম) বিরুদ্ধে আগামী পহেলা জানুয়ারি থেকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, যেহেতু আগামীকাল ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস এবং আমাদের অন্য কাজের সুবিধার্থে এটি ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে। আগামী ১ জানুয়ারি থেকে অভিযানে নামবো। তিনি বলেন, প্রথমত ডিটিএইচ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার জন্য এবং একই সঙ্গে ডিটিএইচ সংযোগ যারা লাগিয়েছেন ও ব্যবহার করছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পহেলা জানুয়ারি থেকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা শুরু করা হবে।
বিদেশী সাংবাদিকদের বাংলাদেশে আশা প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী বলেন, প্রতিবছর বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে পরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের সাংবাদিকদের বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানায়। এবছরও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের সাংবাদিক ও কলামিস্টদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে ২০ দেশের ৩৬ জন সাংবাদিক আজ এখানে এসেছেন।
তিনি বলেন, ৮ দিনের এই সফরের দু’দিনের জন্য তারা সুন্দরবন যাবেন, গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপায়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধ দর্শনে যাবেন। একইসঙ্গে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর নামে গড়া বঙ্গবন্ধু মিউজিয়ামে যাবেন। বিজয় দিবসের দিন তারা প্যারেড পরিদর্শনও করবেন।- বাসস