বঙ্গবন্ধু সংবিধানে শিশুর শিক্ষা নিশ্চিত করতে শিক্ষাকে অবৈতনিক করেছিলেন -হাফেজ রুহুল আমিন মাদানী এম.পি

এইচ. এম জোবায়ের হোসাইন :
জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি সদ্য স্বাধীন যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ নাগরিকদের জন্য শিশু অধিকার আইন এবং সংবিধানে প্রতিটি শিশুর শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য শিক্ষাকে অবৈতনিক করে গিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পিতার দর্শনকে বুকে ধারণ করে প্রতিটি শিশুর জন্য নিরাপদ, আধুনিক ও মানবিক বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য নিরন্তর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছেন। এই বাংলাদেশের মাটিতে আর যেন কখনো শেখ রাসেলের মতো নিরাপরাধ শিশুকে জীবন দিতে না হয় সেজন্য প্রতিটি শিশুকে প্রস্তুত হতে হবে।

কথাগুলো বলেছেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ময়মনসিংহ-৭ ত্রিশাল আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন মাদানী।
তিনি রোববার রাতে ত্রিশাল উপজেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে ছাত্রলীগের কার্যালয়ে শেখ রাসেলের ৫৭তম জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত
আলোচনা সভা, দোয়া ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন।
ত্রিশাল উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান মাহমুদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা, দোয়া ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক আব্দুল হামিদ, সাবেক সাধারন সম্পাদক আবুল কালাম, পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মোকসেদুল আমিন, সাবেক ভিপি আব্দুল মোতালেব, কৃষকলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সফির উদ্দিন শেখ, উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি শফিউল্লাহ মোস্তফা মনির, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মনোয়ার হোসেন, সরকারী নজরুল কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুজ্জামান সজিব, তাতীলীগের যুগ্ম আহবায়ক হুমায়ুন কবীর প্রমূখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন উপজেলা ছাত্রলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক তাজাম্মল হোসাইন পলাশ।