বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক গুরুর চরিত্রে তৌকির

মুম্বাইয়ের শ্যাম বেনেগাল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনীনির্ভর সিনেমা নির্মাণ করতে চলেছে। বাংলাদেশ ও ভারত সরকার যৌথ প্রযোজনায় এই বায়োপিকের শিল্পী নির্ধারণ চলছে। এখন চলছে বিভিন্ন চরিত্রে শিল্পী বাছাই। এ সংক্রান্ত কাজ, শূটিং ও আনুষ্ঠানিক বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে গেল বুধবার (৫ ফেব্রুয়ারী) ঢাকায় এসেছেন বায়োপিক মাস্টার শ্যাম বেনেগাল।

জানা গেছে বঙ্গবন্ধুর এই বায়োপিকে মহান নেতা গণতন্ত্রের মানসপুত্র হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর চরিত্রে অভিনয় করবেন নন্দিত অভিনেতা তৌকীর আহমেদ। এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন তৌকীর নিজেই।

আজ শুক্রবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টায় এফডিসিতে সোহরাওয়ার্দী চরিত্রের জন্য পোশাকের মাপ দেন তৌকীর। এর আগে গেল জানুয়ারিতে অডিশনে অংশ নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকে তারই রাজনৈতিক গুরু হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগকে ক্যারিয়ারে বিশেষ সংযোজন বলে মনে করছেন তৌকীর আহমেদ।

তিনি বলেন, `আমি খুবই আনন্দিত। এত বড় একটি কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারছি। বঙ্গবন্ধু সংশ্লিষ্ট যে কোনোকিছুই ভালো লাগে। তার জীবন নিয়ে নির্মিত সিনেমায় তারই রাজনৈতিক গুরু হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর চরিত্র করতে পারাটা তো আরো বিশেষ কিছু। যারা এই সিনেমার সঙ্গে যুক্ত সবাইকে ধন্যবাদ এবং শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।`

`আরও একটা আনন্দের ব্যাপার হলো কাছে থেকে কিংবদন্তি চলচ্চিত্রকার শ্যাম বেনেগালের কাজ দেখার সুযোগ পাবো। এটা পরিচালক হিসেবে আমাকে অনেক সমৃদ্ধ করবে বলে মনে করি`- যোগ করেন `দারুচিনি দ্বীপ`, `অজ্ঞাতনামা`, `হালদা` সিনেমার পরিচালক তৌকীর।

এদিকে জানা গেছে, শ্যাম বেনেগালের পরিচালনায় এই বায়োপিকে বঙ্গবন্ধুর মা সায়রা বানুর চরিত্রে কাজ করবেন অভিনেত্রী দিলারা জামান। এছাড়া বাকী চরিত্র এখনো নিশ্চিত হয়নি। চলছে যাচাই বাছাই।

তথ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেল, বঙ্গবন্ধুর চরিত্রসহ ছবির অধিকাংশ চরিত্রের জন্য বাংলাদেশ থেকে শিল্পী নেয়া হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু চরিত্রেও থাকবেন বাংলাদেশের অভিনেতা। কিছু চরিত্রে বলিউড ও কলকাতার শিল্পীদের দেখা যাবে। ভারতবর্ষের বাইরের কিছু চরিত্রও এ ছবিতে পাওয়া যাবে।

প্রথমদিকে ছবিতে ইংরেজীতে নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয়া হলেও পরবর্তীতে এটি বাংলা ভাষায় নির্মাণের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। বাংলা ভাষায় নির্মিতব্য চলচ্চিত্রটির হিন্দি সাব-টাইটেল থাকবে।

বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্রটির জন্য বাজেট নির্ধারিত হয়েছে ৩৫ কোটি টাকা। এই বাজেটের ৬০ ভাগ দেবে বাংলাদেশ ও ৪০ শতাংশ দেবে ভারত।

বায়োপিকটি নির্মাণে পরিচালক শ্যাম বেনেগালের সহযোগী পরিচালক হিসেবে কাজ করছেন তারই শিষ্য বলিউডের আরেক নামী পরিচালক দয়াল নিহালানি। চিত্রনাট্য করেছেন বলিউডের বহু সফল ছবির দুই চিত্রনাট্যকার অতুল তিওয়ারি ও শামা জায়েদি। ছবির শিল্পনির্দেশনার দায়িত্ব পেয়েছেন ভারতীয় ছবির জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত শিল্পনির্দেশক নীতিশ রায়। কস্টিউম ডিরেক্টর বা শিল্পীদের পোশাক-পরিচ্ছদ নির্বাচনের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করবেন শ্যাম বেনেগালের মেয়ে পিয়া বেনেগাল।

আরও জানা গেছে, এই বায়োপিকে উঠে আসবে বাংলাদেশের অভ্যুদয় থেকে পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের নির্মম ট্র্যাজেডি। তারুণ্য থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা এবং পরবর্তী সময়ের মুজিবের দেখা মিলবে ছবিতে।

চলতি বছরের ১৭ মার্চ শততম জন্মবর্ষে পদার্পণ করবেন বঙ্গবন্ধু। শুরু হবে মুজিববর্ষ। সেদিন থেকে শুরু হবে এই সিনেমার শুটিং। এই মুজিববর্ষেই অর্থাৎ ২০২১ সালের ১৭ মার্চের আগেই শেষ হবে বায়োপিকের নির্মাণ কাজ। ২ ঘণ্টা ২০ মিনিট ব্যাপ্তির এই সিনেমা মুক্তিও দেওয়া হবে মুজিববর্ষে।