বঙ্গবন্ধুর কালজয়ী ভাষণ মুক্তিকামী মানুষকে প্রেরণা যুগিয়ে যাবে – সাংসদ রুহুল আমিন মাদানী

বাঙ্গালী জাতীর মহানায়ক জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সে কালজয়ী ভাষণ বিশ্বের শোষিত, বঞ্চিত ও মুক্তিকামী মানুষকে সবসময় প্রেরণা যুগিয়ে যাবে। জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী উদ্‌যাপন উপলক্ষে বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ১৭ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত ‘মুজিববর্ষ’ হিসেবে ঘোষণা করেছেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর অসামপ্ত কাজগুলোকে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। বাঙালি জাতির জন্য তিনি যে সোনার বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন, যে উন্নত জীবনের কথা ভেবেছিলেন, তার সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী।
বর্তমানে বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উন্নীত হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছে। বাংলাদেশ আজ আত্মমর্যাদাশীল দেশ হিসেবে বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। এসব কিছু শুধু বাংলাদেশের জনগণের দোয়া, সমর্থন ও ভালবাসায় বাস্তবায়ন করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।:
কথাগুলো বলেছেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন মাদানী।
তিনি মঙ্গলবার জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কারো চাপে মাথানত না করার কথা উল্লেখ করে সাংসদ মাদানী আরো বলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে আবার ক্ষমতায় এসেছেন। ষড়যন্ত্রকারীদের ষড়যন্ত্র জনগণের শক্তির কাছে হার মেনেছে, ভবিষ্যতেও হার মানতে হবে। তাই তিনি সকলকে বঙ্গবন্ধুর চেতনার লক্ষ্যে পৌঁছতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানান।
ত্রিশাল উপজেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে মাদানী সিএনজিতে আয়োজিত আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন সরকার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আনোয়ার হোসেন আকন্দ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ, আওয়ামীলীগনেতা ফজলে রাব্বি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ইকবাল হোসেন, পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মোকছেদুল আমিন মৃধা, বালিপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি গোলাম মোঃ বাদল চেয়ারম্যান, কানিহারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আশরাফ আলী উজ্জল, আমিরাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান ভুট্রো, মঠবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুস মন্ডল, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক ইব্রাহিম খলিল শান্ত, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাছান মাহমুদ, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মনোয়ার হোসেন প্রমূখ।