ফুলপুরে লকডাউনের ৩য় দিনেও ২৬ মামলা, জরিমানা ১৩২০০

মোঃ খলিলুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ
কঠোর বিধি নিষেধ বাস্তবায়নে গতদুই দিনের মতো লকডাউনের ৩য় দিন শনিবারও ময়মনসিংহের ফুলপুরে মাঠে ছিল পুলিশ ও সেনাবাহিনীসহ উপজেলা প্রশাসন। উপজেলার বিভিন্ন পয়েন্টে টহল দিচ্ছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। এমনকি গাড়ি দাঁড় করিয়ে করেছেন জিজ্ঞাসাবাদ। সদুত্তর দিলে গন্তব্যে যেতে পারছেন অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থার নেয়ার পাশাপাশি তাদের ঘরে ফিরিয়ে দিতে দেখা যাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে। সকালে প্রধান প্রধান সড়কে লোকজন দেখা গেছে কম। অপরদিকে হাতেগোনা রিকশা ও মোটরসাইকেল ছাড়া নেই অন্যান্য যানবাহন। সেইসাথে জনসমাগম ঠেকাতে ও সরকারি বিধি নিষেধ মানাতে এদিন উপজেলায় বিভিন্ন এলাকায় ফুলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শীতেষ চন্দ্র সরকার ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো: এরফানুর রহমানের নেতৃত্বে দুইটি ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে সার্বক্ষণিক মাঠে অভিযান পরিচালনা করা হয়। বিনা কারনে কেউ ঘর থেকে রাস্তায় বের হলে তাদেরকে জরিমানা ও জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ঘরে থাকতে বলা হয়েছে। 

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে জনস্বার্থে সরকার ঘোষিত লকডাউন কার্যকরে ফুলপুরে কঠোর অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন। এসময় করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে, স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ও সরকারি আদেশ অমান্য করার অপরাধে  ২৬ জনের বিরুদ্ধে  মামলা করে  জরিমানা আদায় ও অনেককেই সতর্ক করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। সেইসাথে লকডাউনে ঘর থেকে বের না হওয়াসহ সরকারি নির্দেশনা হ্যান্ড মাইকে প্রচার করা হয়েছে। ৭ দিনের কঠোর লকডাউনের ৩য় দিন শনিবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত সরকার নির্ধারিত লকডাউন মানাতে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চলে।

ফুলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শীতেষ চন্দ্র সরকার লকডাউন স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ও সরকারি আদেশ অমান্য করার অপরাধে ১১ টি মামলায় ৪ হাজার ৯শত টাকা জরিমানা করে তা আদায় করেন। এছাড়া ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো: এরফানুর রহমান উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ও সরকারি আদেশ অমান্য করার অপরাধে ১৫ টি মামলায় ৮ হাজার ৩শত টাকা জরিমানা করে তা আদায় করেন।