ফুলপুরে ঢাকামুখী পোষাক শ্রমীকের ঢল, বিভিন্ন কৌশলে যাওয়ার চেষ্টা

মোঃ খলিলুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ
চলমান কঠোর লকডাউনের মধ্যেই আগামীকাল রবিবার (১ আগস্ট) থেকে খুলছে রফতানিমুখী শিল্প কারখানা। শুক্রবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এক প্রজ্ঞাপনে এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিয়েছে।

শিল্পকারখানা খুলে দেওয়ার এই খবরে সড়কপথে বেড়েছে ঢাকামুখী মানুষের ভিড়।

লকডাউনের নবম দিন শনিবার স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে ময়মনসিংহের ফুলপুর বাসষ্ট্যান্ডে দেখা গেছে ঢাকামুখী পোষাক শ্রমীকদের ঢল।পোশাক কারখানা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে পোশাক শ্রমিকরা লকডাউন উপেক্ষা করেই বিভিন্ন কৌশলে ঢাকায় যাওয়ার চেষ্টা করছে।

কঠোর লকডাউনের কারণে গণপরিবহন চলাচল না করায় শনিবার (৩১ জুলাই) সকাল থেকে ময়মনসিংহের ফুলপুর থেকে পণ্যবাহী ট্রাকে, পিকআপ, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকারসহ বিভিন্ন ধরনের থ্রি-হুইলার ও পণ্যবাহী যানবাহনে নানা কৌশলে গাদাগাদি করে ঢাকার দিকে ছুটছে কর্মজীবী মানুষ। কোথাও মানা হচ্ছে না নূন্যতম স্বাস্থ্যবিধি। এতে করোনার সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

পোশাক শ্রমিকরা জানান, পোশাক কারখানা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের ১ আগস্ট উপস্থিত হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। এ কারণে লকডাউন উপেক্ষা করেই তাদের ঢাকামুখী হতে হচ্ছে। ঈদের ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে রয়েছে সকল শ্রমিক। গণপরিবহন বন্ধ রেখে হঠাৎ কারখানা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঠিক হয়নি। গণপরিবহন খুলে দিয়ে কারখানা খোলা উচিত ছিল। তাহলে এ রকম দুর্ভোগ পোহাতে হতো না তাদের।

ঢাকাগামী গার্মেন্টসকর্মী আমিনুল ইসলাম জানান, মহাসড়কে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঈদের ছুটির পর কারখানা খুলে দেওয়ায় তাদের বিপদে পড়তে হয়েছে। অতিরিক্ত ভাড়ায় ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে।