নতুন পানিতে রঙিন ব্যাঙের ডাকাডাকি

57

বর্ষার আগাম বার্তা জানান দিতে শুরু হয়েছে বৃষ্টি। আর নতুন পানি পেয়ে হয়েহে ব্যাঙের হাঁকডাক। বর্ষাকাল আসতে এখনাে মাস
দেড়েক দীর্ঘদিন বৃষ্টিশূন্য থাকলেও ত্রিশালে এক
দিনের মুষলধারে বৃষ্টির পর ব্যাঙের মধ্যে যেন বইছে আনন্দের বন্যা। বৃষ্টির নতুন পানিতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় জলাধারে দেখা
যায় ব্যাঙের মিলনমেলা। নানা রয়ে শ্যাডো ডাকে মুখরিত চারদিক। তবে এখনকার সময়ে গ্রামাঞ্চলে ব্যাঙের এমন দৃশ্য আর ডাকাডাকি তেমন চোখে পড়ে না।
গত শুক্রবার পৌর শহরের পশু হাসপাতাল সংলগ্ন খালি পড়ে ভােলা জায়গায় বৃষ্টিতে জমে থাকা পানিত জড়াে হয় অসংত্ম্য ব্যাঙ। ব্যাঙেরএমন মিলনমেলা দেখতে উৎসুক জনতা ভিড় জমায়। অল্প জায়গায় ব্যাঙেরা গ্যাঙরগ্যাড শব্দে মুখরিত
করে তােলে। পৌর শহরের বাসিন্দারা জানান, এমন দৃশ্য আগে নিয়মিত দেখা যেত। এখন ব্যাঙই ঠিকমতাে দেখা যায় না। অনেক দিন পরে
ব্যাঙের মেলা আর ডাকাডাকিতে প্রকৃতির আবহমান রূপের দেখা মিলেছে।
স্থানীয় বাসিন্দা জিম্মান বলেন,‘আমরা কয়েকজন বৃষ্টির পানি জমে থাকা পতিত জমির পাশ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলাম। এমন সময় একসঙ্গে অনেকগুলাে ব্যাঙ দেবতে পাই। অল্প জায়গায় একসঙ্গে এত ব্যক্তি আগে কখনাে ব্যাঙের ডাক শুনে আশপাশের অনেকেই এ দৃশ্য দেখতে ভিড় জমান।
ত্রিশাল উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ বলেন,“এখন অনেক ধরনের ব্যাড দেবা
যায় না, বিলুপ্ত হয়ে গেছে। একসঙ্গে এত ব্যাড এন আর দেখা যায় না। বৃষ্টির সময় ব্যাঙের প্রজনন মৌসুম। রঙিন ব্যাঙগুলাের নাম সােনা ব্যাঙহলুদ রঙের ব্যাঙগুলো আর রঙের ব্যাঙগুলাে
মেয়ে ব্যাঙ। পুরু ব্যাঙগুলােই ডাকাডাকি করে।