ত্রিশালে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে হতদরিদ্রের চাল উদ্ধার

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :
মজুদ দুইবস্তা চাল আছে, বিতরনের জন্য আর কোন চাল নেই। এমন সংবাদের ভিত্তিতে ময়মনসিংহের ত্রিশালে খাদ্য অধিদপ্তর কর্তৃক পরিচালিত ‘হতদরিদ্রদের জন্য খাদ্য বান্ধন কর্মসূচী’র আওতায় ডিলারের দোকানে অভিযান চালিয়ে গোপনে রাখা ১৬ বস্তা চাল উদ্ধার করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমান ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) তরিকুল ইসলাম তুষারের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে এ চাল উদ্ধার করা হয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমান জানান, উপজেলার বইলর ইউনিয়নে ‘হতদরিদ্রদের জন্য খাদ্য বান্ধন কর্মসূচী’র ডিলারের দোকানে স্টকে দুই বস্তা চাল আছে বিতরনের জন্য আর কোন চাল নেই চাল নিতে আসা হতদরিদ্রদের এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযান চালায় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট। এ সময় ডিলারের গোডাউন থেকে চুরি করে গোপন রাখা ৩০ কেজি চালের ১৬টি বস্তা উদ্ধার করা হয়েছে। এ বিষয়ে খাদ্য বিভাগ সংশ্লিষ্ট ডিলার আবু খালেকের ডিলারশিপ বাতিলসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলেও তিনি জানান।
খাদ্য অধিদপ্তর কর্তৃক পরিচালিত ‘হতদরিদ্রদের জন্য খাদ্য বান্ধন কর্মসূচী’র সার্বিক বিষয় নিয়মিত মনিটরিং করার জন্য উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা উজ্জল কুমার দত্ত থাকার কথা থাকলেও নিয়মিত মনিটরিং না করায় এমন ঘটনার ঘটানোর সুযোগ ডিলাররা পেয়েছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেন। পাশাপাশি সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী কর্মকর্তাদের নিয়মিত অফিসে থাকার কথা থাকলেও সরকারী ছুটির পর থেকে উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তাকে অফিসে দেখা যায়নি। কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় অভিযানেও থাকনেনি তিনি। এসময় ওসিএলএসডি (ধানীখোলা) মোখলেছুর রহমান, ত্রিশাল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক জাহাঙ্গীর উপস্থিত ছিলেন।
নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট তরিকুল ইসলাম বলেন, অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে ১৬ বস্তা চাল আটক করেছি। তবে ডিলার আবু খালেককে এসময় ঘটনাস্থলে পাওয়া যায়নি। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।