ত্রিশালে জলাবদ্ধতা নিরসনে মোবাইল কোর্ট, ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড

ফারুক আহমেদ :
ফসলী জমিতে জলাবদ্ধতা নিরসন, কৃষকের ফসল রক্ষা, বসতবাড়িকে জলমগ্নতা থেকে রক্ষা, অপরিকল্পিতভাবে জমির শেণ্রি পরিবর্তনের মাধ্যমে পুকুর তৈরী এবং এর ফলে জলাবদ্ধতা প্রতিরোধে মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ত্রিশাল মোস্তাফিজুর রহমান এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) তরিকুল ইসলাম এর নেতৃত্বে চকরামপুর নামক স্থানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।
মোবাইল কোর্ট সূত্রে জানাযায়,শরিফুল ইসলামের নেতৃত্বে কতিপয় ব্যক্তি অপরিকল্পিতভাবে পুকুর খননের মাধ্যমে পানি চলাচলের কালভার্ট বন্ধ করে প্রায় ৩০ একর জমিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি করেছেন। অভিযুক্ত শরিফুল ইসলাম কে ঘটনাস্থল থেকে আটক করা হয়। তিনি তার অপরাধ স্বীকার করেন এবং জলাবদ্ধতা নিরসনের লক্ষে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিবেন বলে অংঙ্গীকার করেন। পরে আসামীর দোষ স্বীকারোক্তির উপর ভিত্তি করে তাকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট তরিকুল ইসলাম দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইন, ২০১২ এর অধীনে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। অর্থদন্ডের টাকা তাৎক্ষণিক আদায় করা হয়। এ সময় ঘটনাস্থলে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন সরকার ও এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন। অভিযানে ত্রিশাল থানা পুলিশ ও আনসার বাহিনী সহায়তা প্রদান করে। তরিকুল ইসলাম জানান,জলাবদ্ধতা নিরসনে মোবাইল কোর্ট অব্যাহত থাকবে।