ত্রিশালে জমি সংক্রান্ত বিবাদে বৃদ্ধা খুন

ফারুক আহমেদ :
ময়মনসিংহ ত্রিশালের রামপুর ইউনিয়নের বীররামপুর চরাপাড়া এলাকায় জমি সংক্রান্ত বিবাদে খুন হয়েছেন মেহেরুন নেছা নামক ৮৫ বছর বয়সী মহিলা।

এলাকাবাসী জানায়, একই বংশের প্রতিবেশী মৃত হামিদ আলী সরকারের ছেলে বুলবুল হোসেনের কাছ থেকে ২২ শতাংশ জমি ক্রয় করে উক্ত জমিতে মেহেরুন নেছা (৮৫) ও তার মেয়ে সেতারা বেগম (৪০) বসবাস করে আসছিলো। কিছুদিন যাবৎ থেকে ওই জমিকে কেন্দ্র করে মেহেরুন নেছার ছেলেদের সাথে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এরই প্রেক্ষিতে গত সোমবার বিকেলে মেহেরুন নেছার বাড়িতে প্রবেশ করে ১২ থেকে ১৩ জন সঙ্গবদ্ধ ভাবে মেহেরুন নেছা ও তার মেয়ে সেতারা বেগমকে মারধর করে। মারাত্মক আহত অবস্থায় মেহেরুন নেছাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার রাতে মৃত্যুবরণ করেন। অন্যদিকে সেতারা বেগম ত্রিশাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তিরত অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছেন।

এ বিষয়ে মেহেরুন নেছার ছেলে আব্দুছ ছাত্তার বাদী হয়ে একই এলাকার প্রতিবেশী তাজুল ইসলামের তিন ছেলে হুমায়ুন কবীর সজল, ফরহাদ মিয়া ও নোমান মিয়া, মৃত হামেদ আলীর তিন ছেলে বুলবুল হোসেন, ফারুক মিয়া ও রুবেল মিয়া, বুলবুল হোসেনের দুই ছেলে হৃদয় মিয়া ও রিয়াদ হোসেন, বুলবুল হোসেনের স্ত্রী আজিদা বেগম, মৃত আলম শেখের ছেলে আঃ বারেক, মৃত কালু শেখের ছেলে তাজুল ইসলাম এবং আঃ বারেকের ছেলে শাহীন মিয়াকে অভিযোক্ত করে মঙ্গলবার ত্রিশাল থানায় ধারা-১৪৩, ৪৪৭, ৪৪৮, ৩২৩, ৩২৪, ৩২৫, ৩০২, ৩০৭, ৪২৭, ৫০৬, ১১৪ পেনাল কোড- ১৮৬০ উল্লেখ করে এজাহার রুজু করেন, যার মামলা নং-৩৩।

ত্রিশাল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহা. আজিজুর রহামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তাজুল ইসলামের পুত্র ঘাতক হুমায়ুন কবীর সজল ও মৃত হামেদ আলীর ছেলে ঘাতক বুলবুল হোসেন গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতার করার প্রচেষ্টা চলছে।