ত্রিশালে ইউএনও – এ্যাসিল্যান্ডের দুটি পদই শুন্য,প্রশাসনে স্থবিরতা

ফারুক আহমেদ :
ময়মনসিংহের ত্রিশালে উপজেলা নির্বাহী কমকর্তা (ইউএনও) ও সহকারী কমিশনারের (ভূমি) দুটি পদই শুন্য । ফলে প্রশাসনে দেখা দিয়েছে স্থবিরতা।
জানাযায়,দুই সপ্তাহের অধিক সময় ধরে শূন্য আছে ত্রিশাল উপজেলা পর্যায়ের প্রশাসনিক সর্বোচ্চ দুটি পদ ।
অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে পাশের উপজেলার ইউএনওকে ত্রিশালের দায়িত্ব দেয়া হলেও তিনি দেশের বাহিরে অবস্থান করায় দায়িত্ব দেয়া হয় পাশ্ববর্তী আরেক ইউএনওকে। দায়িত্ব দেয়ায় অতি গুরুত্বপূর্ণ ছাড়া বাকি সব কাজ বন্ধ আছে। এতে স্থবিরতা তৈরি হয়েছে প্রশাসনিক কর্মকান্ডে। সহকারী কমিশনারের (ভূমি) দায়িত্বে কেউ না থাকায় বন্ধ হয়ে গেছে জমিসংক্রান্ত সকল কার্যক্রম।
ত্রিশাল উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, গত ১৮ ডিসেম্বর ত্রিশালের ইউএনও আব্দুল্লাহ আল জাকিরের ঢাকায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বদলি আদেশ হলে ৩১শে ডিসেম্বর তিনি দায়িত্ব হস্তান্তর করেন।এর আগে গত ২৮ ডিসেম্বর সহকারী কমিশনার (ভূমি) এরশাদ উদ্দিন ইউএনও হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে অন্যত্র বদলি হন। এরপর থেকে ত্রিশাল উপজেলার প্রশাসনিক সর্বোচ্চ এ দুটি গুরুত্বপূর্ণ পদ একসাথে শূন্য রয়েছে।
সূত্রমতে বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল জাকির বদলি হওয়ার পর কিছুদিন ত্রিশালে ইউএনওর অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করেন ভালুকার ইউএনও মাসুদ কামাল। পরে তিনিও অস্ট্রেলয়া সফরে যাওয়ায় ভালুকার ইউএনওর দায়িত্ব পালন করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) রোমেন শর্মা। ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত তিনি অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে ত্রিশালের ইউএনওর দায়িত্বও পালন করেন।তবে পরের দিন থেকে অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে ত্রিশালের ইউএনওর দায়িত্ব পেয়েছেন ময়মনসিংহ সদরের ইউএনও হাফিজুর রহমান। সহকারী কমিশনার ভূমি হিসেবেও ইউএনও সদর অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন।
এদিকে ত্রিশালে সহকারী কমিশনার (ভূমি) না থাকার উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন ভূমি অফিসের জমা-খারিজ কার্যক্রম বন্ধ হয়ে আছে। প্রতিদিন ভূমি অফিসে এসে ফিরে যাচ্ছেন জমির মালিকরা। জমা-খারিজ কার্যক্রম বন্ধ থাকায় উপজেলার সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে দলিল নিবন্ধনও কমে গেছে।