ত্রিশালের কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে শিশু ধর্ষণ চেষ্টা, আটক ১

মাসুদ রানা, ময়মনসিংহ ১ ডিসেম্বর :
ময়মনসিংহ ত্রিশালের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের বাসে এক শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই বাসের হেলপার মজিবুর রহমানকে (৫০) হাতে নাতে আটকেরর পর গনধোলাই দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে শিক্ষার্থীরা।

রবিবার (১ ডিসেম্বর) বিকেল তিনটার দিকে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ১নং গেইটের পাশে অবস্থিত গাড়ির গ্যারেজের সামনে শিক্ষার্থীদের জন্য ভাড়ায় চালিত অপেক্ষমান সিকদার পরিবহনের ( ঢাকা মেট্রো ব-১৪-৫৬৯৮) ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, গাড়ীর হেলপার মজিবর বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশ্ববর্তী এলাকার আট বছরের এক শিশু কন্যাকে মোবাইলে ভিডিও দেখার প্রলোভন দেখিয়ে গাড়ির ভিতরে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী নিজের সিট রাখার জন্য গাড়িতে উঠলে তাকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে অন্য শিক্ষার্থীদের খবর দেয়। এসময় আশেপাশে থাকা শিক্ষার্থীরা এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে গাড়ির হেলপার মজিবুরকে গনধোলাই দেন। পরে ওই হেলপারকে প্রক্টররিয়াল বডির কাছে নিয়ে যায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি তাৎক্ষনিক শিশুর বাবাকে খবর দিয়ে তার কাছে শিশুটিকে হস্তান্তর করে। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশকে খবর দিলে তারা মজিবুরকে আটক করে ত্রিশাল থানায় নিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, এভাবে ক্যাম্পাসের ভিতরে শিশু ধর্ষণের ঘটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ও ক্যাম্পাসের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করেছে। আমরা এ ঘটনার দৃষ্টান্ত মুলক বিচার চাই।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. এএইচএম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে এ ধরনের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। এ ঘটনার বিচারের জন্য শিশুর বাবাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতার পাশাপাশি অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। আগামীকালের মধ্যেই সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে চালিত বাস মালিকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে এ ব্যাপারে কঠিন সতর্ক করা হবে।

অন্যদিকে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর উজ্জল কুমার জানান, ঘটনার শুনার পর পরই আমরা আসামীকে থানায় সোপর্দ করেছি। শিশুর বাবা বাদী হয়ে ত্রিশাল থানায় মামলা দায়ের করেছে। আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে শিশুর বাবাকে আইনী লড়াইয়ের জন্য সর্বাত্বক সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছি।

ত্রিশাল থানার অফিসার ইনচার্জ আজিজুর রহমান এই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় মজিবুর নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। শিশুর বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।