ত্বকের পরিচর্যায় বেদানা

বিশেষ করে গরমকালে ত্বকের পরিচর্যায় যেকোনও ফল রাখতে পারলে তার চেয়ে ভাল আর কিছু হতে পারে না। আর যদি সেই ফলের নাম হয় বেদানা, তাহলে তো কথাই নেই। বেদানা খেলে শরীরে যেমন অনেক পুষ্টিগুণ ঢোকে, ঠিক তেমনই ত্বকের যত্নেও বেদানার জুড়ি মেলা ভার। মূলত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান থাকে এই ফলের মধ্যে। তার ফলে ত্বকের ঔজ্জ্বল্য ফিরে আসে। অয়েলি স্কিন এবং যাঁদের ব্রন- র সমস্যা রয়েছে তাঁদের ক্ষেত্রে খুব ভাল স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করা যায় বেদানা। এছাড়া মুখে লাগানোর সিরাম কিংবা টোনার হিসেবেও ব্যবহার করা যায় বেদানার রস।

ত্বকের পরিচর্যায় কীভাবে কাজে লাগে বেদানা

১। এখন গরমকাল। কিন্তু কাজের সূত্রে অনেককেই এই চড়া রোদে প্রতিদিন বাইরে বেরোতে হচ্ছে। তাই সান ড্যামেজ এবং ট্যানের সমস্যায় নাজেহাল অবস্থা। মুখের মধ্যে অনেকেরই হয়তো কালচে দাগ-ছোপ পড়ে গিয়েছে। এক্ষেত্রে কাজে লাগে বেফানা। সান ড্যামেজ এবং ট্যান দূর করতে দারুণ ভাবে কাজ করে বেদানা।

২। বেদানার মধ্যে থাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। এর সাহায্যে যেমন ত্বকের কালচে দাগ-ছোপ, ডার্ক সার্কেল, পিগমেন্টেশন দূর হয়, তেমনই ত্বকের ঔজ্জ্বল্য ফিরে আসে। পাশাপাশি বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে বেদানা।

৩। যাঁদের ত্বক ভীষণ তৈলাক্ত, অর্থাৎ অয়েলি স্কিন, তাঁদের ক্ষেত্রে মারাত্মক ভাবে ব্রন- র সমস্যা দেখা দেয়। এর ফলে ত্বকে চুলকানি, র‍্যাশ, অ্যালার্জি, লাল হয়ে যাওয়া—- বিভিন্ন সমস্যা দেখা যায়। কিন্তু বেদানা এইসব সমস্যা দূর করে। কারণ এই ফলের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এর প্রভাবেই ব্রন এবং অন্যান্য সমস্যা দূর হয়। স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে বেদানা। এর ফলে ত্বকের অতিরিক্ত তেল পরিষ্কার হয়ে যাবে।

৪। ত্বকের ডিটক্সিফিকেশন অর্থাৎ মরা কোষ বা চামড়া কিংবা বলা ভাল ত্বকের জৌলুসহীন ভাব দূর করে উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনে এই বেদানা। ত্বক হয় মোলায়েম।